চুরির অভিযোগে কিশোরকে খুঁটির সাথে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা!

Mymensingh Killing
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের গৌরীপুরে চুরির অভিযোগে সাগর আহম্মেদ (১৭) নামে এক কিশোরকে খুঁটিঁর সাথে বেঁধে বেধড়ক পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় উপজেলার চরশ্রীরামপুর গ্রামের গাউছিয়া মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত সাগর ময়মনসিংহ সদরের নাটক ঘর লেন এলাকার শিপন মিয়ার পুত্র। সে ভ্যানগাড়ী নিয়ে এলাকায় এলাকায় ঘুরে ভাঙ্গাড়ি কিনে ব্যবসা করতো।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, সোমবার গাউছিয়া মৎস্য প্রজনন কেন্দ্রের একটি পানির মর্টার চুরির চেষ্টা করছে এমন অভিযোগে  Mymensingh Killingসাগরকে আটক করে হ্যাচারীর মালিক আক্কাছ আলী। পরে সে ও তার লোকজন মিলে ওই তাকে খুঁটির সাথে বেঁধে বেধরক মারপিট করতে থাকে। চুরির কথা ওই যুবক বারবার অস্বীকার করলেও নির্যাতনকারীরা তার কথা কানে নেয়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী এক যুবক জানায়, মারপিটের সময় অনেকেই মোবাইল ফোনে দৃশ্য ধারণ ও ছবি তুলে রাখে। মারধরের এক পর্যায়ে সাগর নিস্তেজ হয়ে পড়লে তাকে খুঁটির সাথে বেঁধে রাখা হয়। দীর্ঘ সময় পরে তার বাঁধন খুলে দিলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু নিশ্চিত হয়। পরে তার লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে হ্যাচারির পেছনে ছনের জংলায় গর্ত খুড়ে লাশ মাটি চাপা দিয়ে রাখা হয়।

নিহতের বাবা মোহাম্মদ শিপন মিয়া বলেন, আমার ছেলে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ভাঙ্গাড়ির ব্যবসা করত। চুরি করার প্রশ্নই আসে না। মিথ্যা চোর সন্দেহে তাকে নির্মমভাবে মারা হয়েছে। আমরা গরীব মানুষ কিন্তু চোর না। যারা আমার ছেলেকে নির্যাতন করে হত্যা করেছে তাদের আমি বিচার চাই।

গৌরীপুর থানার ওসি দেলোয়ার আহমেদ জানান, হ্যাচারীর পাশের একটি ছন জংলা থেকে থেকে মাটি খুড়ে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকেই হ্যাচারির মালিকসহ ঘটনার সাথে জড়িতরা পলাতক রয়েছে। তাদের আটকের চেষ্টা চলছে।

ভিডিও: https://www.youtube.com/watch?v=rDo8N0inS5I&feature=youtu.be

ad