মানুষের স্মৃতি ফিরিয়ে দেবে কম্পিউটার গেম!

C Hero Quest
ad

জাগরণ ডেস্ক: স্মৃতিবিভ্রম (ডিমেনশিয়া) রোগে আক্রান্ত মানুষের স্মৃতিশক্তি ফিরিয়ে দিতে সক্ষম একটি কম্পিউটার গেম উদ্ভাবন করেছেন বিজ্ঞানীরা। যুক্তরাজ্যের গবেষণাকারী প্রতিষ্ঠান আলঝেইমারস রিসার্চ ইউকে’র বিজ্ঞানীরা যুগান্তকারী এই গেমটির উদ্ভাবন করেন।

স্মৃতিবিভ্রম নিয়ে ‘সি হিরো কুয়েস্ট’ নামে গেমটিতে নাবিকের ভূমিকায় থাকবেন স্মৃতিবিভ্রমে আক্রান্ত ব্যক্তি। তার জন্য চ্যালেঞ্জ থাকবে উত্তাল পানিপথে, কঠিন বরফের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময় সব প্রতিবন্ধকতা উপেক্ষা করে সঠিকভাবে নির্দেশনা দিয়ে এগিয়ে যাওয়া।

স্নায়ুবিজ্ঞানীরা বলছেন, এটা শুধু খেলাই নয়, যখন ওই ব্যক্তি খেলতে থাকবেন তখন অসংখ্য তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ হতে থাকবে। পরে তথ্য-উপাত্তগুলো মূল্যায়ন করা হবে। এতে তরুণ বয়সের যেসব স্মৃতি হারিয়ে গেছে, সেগুলোও উঠে আসবে।

২০১৬ সালে গেমটি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রথমবারের মতো উপস্থাপন করেন স্নায়ুবিজ্ঞানীরা। ডয়চে টেলিকম নামে জার্মানির এক প্রতিষ্ঠান এই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য অর্থায়ন করছে। এদের প্রাথমিক লক্ষ্য হচ্ছে, স্মৃতিবিভ্রমে আক্রান্ত লোকদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার আওতায় আনা।

সুইজার‍ল্যান্ডের জুরিখের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ইটিএইচ জুরিখের কগনেটিভ সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ক্রিস্টফ হোলশার বলেন, এটা আমাদের এমন এক সুযোগ করে দেবে, যার সাহায্যে অসংখ্য তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা যাবে, যা বর্তমান সময়ের কোনো প্রযুক্তির মাধ্যমে করা সম্ভব নয়।

বিবিসির খবরে বলা হয়, যুক্তরাজ্যে এখন প্রায় সাড়ে আট হাজার মানুষ স্মৃতিবিভ্রম রোগে আক্রান্ত হয়ে জীবনযাপন করছেন, যা ২০৫০ সালের মধ্যে ৪০ হাজারে দাঁড়াতে পারে। যারা স্মৃতিবিভ্রম রোগে আক্রান্ত, তাদের প্রায় অধিকাংশের ক্ষেত্রেই সম্পূর্ণ অসুস্থ হওয়ার আগে উপসর্গ দেখা দিয়েছিল।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখন পর্যন্ত এমন কোনো ওষুধ আবিষ্কার হয়নি, যা স্মৃতিবিভ্রম রোগে আক্রান্ত হওয়া থেকে ঠেকাতে পারে কিংবা ভালো করতে পারে। কিন্তু এ কথা সর্বজনবিদিত যে রোগাক্রান্ত হওয়ার আগে রোগীর কি ধরনের উপসর্গ দেখা দিয়েছিল, সে সম্পর্কে চিকিৎসকরা যদি জানতে পারেন, তবেই তারা চিকিৎসার কাজ এগিয়ে নিতে পারেন।

ad