যে উপায়ে ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয় করতে পারবেন

You tube logo
ad

জাগরণ ডেস্ক: আজকাল বাড়তি আয়ের জন্য অনেকেই ইউটিউব চ্যানেল খুলছেন। তবে সবার ইউটিউব চ্যানেলই জনপ্রিয় হয় না। যে কারণে টাকা আয়ও সম্ভব হয় না। তবে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করলে আপনিও ইউটিউব থেকে সহজেই টাকা আয় করতে পারবেন।

১. ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয়ের জন্য সবার আগে নজর দিতে হবে কনটেন্টের দিকে। আপনি যেই কনটেন্টই বানান না কেন সেটা অবশ্যই আকর্ষণীয় ও দৃষ্টিনন্দন বা শ্রুতিমধুর হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। তাহলেই দর্শক আপনার চ্যানেলের দিকে ঝুকবে।

২. যেকোনো ইউটিউব চ্যানেল থেকে আয়ের প্রাথমিক শর্ত হল রেগুলারিটি। অর্থাৎ, চ্যানেলের অ্যাডমিনকে নিয়মিত কনটেন্ট আপডেট রাখতে হবে। প্রয়োজনে চ্যানেল খোলার আগে থেকে দুই বা তিন সপ্তাহের কনটেন্ট মজুত করে রাখতে হবে।

৩. ভিডিও কোয়ালিটি অবশ্যই ঝকঝকে হওয়া প্রয়োজন। এছাড়া শব্দও পরিষ্কার থাকা প্রয়োজন। পারলে ভিডিওগুলি ছোট আকারে তৈরি করবেন।

৪. উক্ত সমস্ত শর্ত ঠিকঠিকভাবে পূরণ করলে, নজরটা দিতে হবে সাবস্ক্রাইবারের দিকে। এ জন্য আপনার চ্যানেলকে বেশি করে প্রমোশন করতে হবে। শুরুতে ১ হাজার সাবস্ক্রাইবার তৈরি করতে পারলে ভিডিও যদি সুন্দর হয় তাহলে এমনিতেই সাবস্ক্রাইবার বাড়বে।

৫. এরপর আসে ওয়াচ আওয়ার বাড়ানোর প্রসঙ্গ। টেক বিশারদদের মতে, প্রথম ক্ষেত্রে টার্গেট নেওয়া উচিত যত দ্রুত সম্ভব ওয়াচ আওয়ারের মাত্রা চার হাজার অতিক্রম করার। এ জন্য প্রয়োজনে শুরুর দিকে বেশি বেশি কনটেন্ট আপলোড দিতে হবে।

৬. এরপরেই ইউটিউবের চ্যানেলের সঙ্গে গুগল অ্যাডসেন্সকে যুক্ত করা যায়। তবে এখানেই কাজ শেষ হয় না। এরপর যত আকর্ষণীয় ভিডিও চ্যানেলে আপলোড করা হবে ততই চ্যানেলের জনপ্রিয়তা বাড়বে এবং চ্যানেলে আসতে থাকবে গুগল অ্যাড।

৭. তবে, কনটেন্ট বা বিষয় আকর্ষণীয় না হলেও রোজগার করা যায় ইউটিউব থেকে। এক্ষেত্রে চ্যানেলের ভিডিওটিতে স্পনসরড ভিডিও হিসাবে তৈরি করা যায়। ধরুণ কোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে প্রমোশন। তবে এ জন্য তাদের সাথে আগে থেকেই চুক্তি করে নিতে হবে।

ad