কোচ হতে রাজি হয়েও বিসিবিকে ফারব্রেসের না

Coach, BCB, Farbrace, no,
ad

স্পোর্টস ডেস্ক: বাংলাদেশে ক্রিকেট দলের নতুন কোচ হতে রাজি হওয়ার পরেও শেষ মুহূর্তে পারিবারিক কারণে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) ‘না’ করে দিয়েছেন বর্তমানে ইংল্যান্ডের সহকারী কোচ পল ফারব্রেস।

ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন-ক্রিকইনফো জানাচ্ছে, গত সপ্তাহে বাংলাদেশের কোচ হিসেবে চুক্তি সই করার খুব কাছেই চলে গিয়েছিলেন ফারব্রেস। কিন্তু চুক্তিপত্র পাঠানোর পর সাবেক ইংলিশ উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান বিসিবিকে জানান, এই মুহূর্তে তিনি বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারছেন না।

এই বিষয়ে ক্রিকইনফোর কাছে বিসিবি কিংবা ফারব্রেস- দুপক্ষের কেউই কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

অথচ গত ৭ মার্চ বিসিবি সভাপতি কোচ নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করেই বলেছিলেন গণমাধ্যমে। তিনি জানিয়েছিলেন, কোচ নিয়োগের কাজ প্রায় শেষ। তিনি পরিচিত ব্যক্তি। বিসিবি আশা করছিল সেই পরিচিত ব্যক্তি এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহেই যোগ দেবেন। কিন্তু আকস্মিক ঘটনায় তা আর হচ্ছে না।

তবে গত ১১ মার্চ পাপন বলেন, এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহেই হেড কোচ নিয়োগ দেবে বিসিবি। আর তিনি হবেন কোনো পরিচিত মুখই। হাথুরুর মতো না।

অবশ্য বিসিবি বেশ কয়েকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। রিচার্ড পাইবাস ও ফিল সিমন্স সাক্ষাৎকার দিয়ে গেছেন। ক্রিকেটাররা চান না বলে পাইবাসকে নিতে চায়নি বিসিবি। তাঁরা এখন অন্য দলের কোচের দায়িত্বে।

এর পর অস্ট্রেলিয়ার জিওফ মার্শ, টম মুডি, জেমি সিডন্স ও স্টুয়ার্ট লকেও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। এদের কেউই আসতে রাজি হননি।

ফারব্রেস এর আগে শ্রীলংকার কোচ ছিলেন। তার অধীনে দারুণ সাফল্য পেয়েছে দেশটি। শ্রীলংকায় দুই বছরের দায়িত্বে এশিয়া কাপ ও আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের শিরোপা জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তিনি। এরপর ২০১৪ সালের এপ্রিলে কোচের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়ে ইংল্যান্ড দলের সহকারী কোচ হন।

এর আগে ২০০০ সালে ফারব্রেস ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল ও ইংল্যান্ড নারী দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৭ সালে শ্রীলংকার কোচ ট্রেভর বেলিসের অধীনে সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলংকা দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার সময় দলটির সঙ্গেই ছিলেন।

ad