চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির তিন ভেন্যুর পরিচিতি

oval ground
ad

স্পোর্টস ডেস্ক: আগামীকাল ১ জুন থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ক্রিকেটের মিনি বিশ্বকাপ নামে খ্যাত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আসর। ১ থেকে ১৮ জুন পর্যন্ত বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা আট দলের এই প্রতিযোগীতার এবারের আসর অনুষ্ঠিত হবে ইংল্যান্ডের তিনটি ভেন্যুতে – লন্ডনের ওভাল, কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনস এবং বার্মিংহামের এজবাস্টন স্টেডিয়ামে।

ওভাল স্টেডিয়াম: এটি লন্ডনের কেনিংটনে অবস্থিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ওভালের বর্তমান প্যাভিলিয়নটির নির্মাণ হয় ১৮৯৮ সালে। টেস্ট ক্রিকেটের প্রথম ভেন্যু অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড বা এমসিজির পরই এটির অবস্থান। ইংল্যান্ডের প্রথম ও বিশ্বের দ্বিতীয় টেস্ট ভেন্যু হিসেবে স্বীকৃত এটি। ১৯৭৫, ১৯৭৯, ১৯৮৩ এবং ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপের বেশকিছু ম্যাচ আয়োজন হয় এই স্টেডিয়ামেই। স্টেডিয়ামটির দর্শক ধারণ ক্ষমতা ২৪ হাজার ৫০০ জন। ১৮ জুন চ্যাম্পিয়নস ট্রফির উদ্বোধনী ম্যাচ ও ফাইনাল হবে এই মাঠেই।

cardiff stedium

কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনস: ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফের টাফ নদীর পশ্চিম তীরে অবস্থিত সোফিয়া গার্ডেনস স্টেডিয়াম। ২০১৩ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালসহ পাঁচটি ম্যাচ এই স্টেডিয়ামে আয়োজন হয়েছিল। কার্ডিফের লেডি সোফিয়া রডন-হ্যাস্টিংসের নামানুসারে সোফিয়া গার্ডেনসের নামকরণ করা হয়। বর্তমানে এই স্টেডিয়ামটি সলেক স্টেডিয়াম নামে পরিচিতি। স্টেডিয়ামের দর্শক ধারণ ক্ষমতা ১৫ হাজার ৬৪৩ জন। ২০০৫ সালের ১৮ জুন এই মাঠে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ওয়ানডে ইতিহাসের সেরা অঘটনের জন্ম দিয়েছিল বাংলাদেশ।

Edgbaston

বার্মিংহামের এজবাস্টন স্টেডিয়াম: এজবাস্টন স্টেডিয়াম ইংল্যান্ডের বার্মিহামের এজবাস্টন এলাকায় অবস্থিত। ১৯৯৪ সালে ব্রায়ান লারা অপরাজিত ৫০১ রানের বিশ্বরেকর্ড ইনিংসটি এই মাঠেই খেলেছিলেন। এজবাস্টনের প্রথম টেস্ট খেলাটি ছিল অ্যাশেজ সিরিজের। প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ইংল্যান্ড ১৯০২ সালে অংশগ্রহণ করে। এটি ইংল্যান্ডের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় স্টেডিয়াম হিসেবে গণ্য হয়ে আসছে।  স্টেডিয়ামটির দর্শক ধারণ ক্ষমতা ২৫ হাজার। লর্ডসের পর দ্বিতীয় বৃহত্তম ক্রিকেট মাঠ হিসেবে পরিচিতি এটি।

ad