নেইমারের ‘সস্তা’র নাটক কম করা উচিত: ম্যারাডোনা

Neymar
ad

স্পোর্টস ডেস্ক: এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় তিন তারকা লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও নেইমার জুনিয়র। মেসি ও রোনালদোর এবার বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেছে দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই। এখন শুধু টিকে আছেন নেইমার। স্বভাবতই তার দিকে এখন নজর সবার। শুরুর দুই ম্যাচে এই তারকা বিবর্ণ থাকলেও এখন ফিরেছেন স্বরূপে। শেষ দুই ম্যাচে এই তারকা করেছেন দুই গোল।

তবে তার গোল নিয়ে অতটা আলোচনা না হলেও আলোচনা চলছে তার ডাইভ নিয়ে। এ কারণে এই তারকা ইতোমধ্যেই পেয়ে গেছেন ‘অভিনেতা’ খ্যাতি। বিদ্ধ হচ্ছেন সমালোচনার তীরেও। এবার সে সমালোচনার আগুনে ফু দিয়ে দিয়েছেন দিয়াগো ম্যারাডোনা।

একটি সংবাদ মাধ্যমকে বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন এ তারকা বলেন, নেইমারও একজন বড় তারকা। তবে এখনও ওর অনেক খামতি রয়েছে। তাও ওকে তারকা বলাই যায়। কিন্তু ওকে বুঝতে হবে মাঠে অতিরিক্ত ডাইভ দিলে হলুদ কার্ড দেখতে হয়। এখন তো আবার ভিএআর পদ্ধতিও রয়েছে। কোস্টারিকার বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই একটা কার্ড দেখেছে। তাই নেইমারের ‘সস্তা’র নাটক কম করা উচিত।

২৬ বছর বয়সী এই তারকা এখনো মেসি-রোনালদোর সমপর্যায়ে যেতে না পারলেও তার নামটা তাদের ঠিক পরেই উচ্চারিত হয়। এখনো কোনো ব্যালন ডি’অর জিততে না পারলেও মেসি-রোনালদোর চেয়ে একটি জায়গায় এগিয়ে নেইমার। সেটা হলো জাতীয় দলের পারফরমেন্সে। মেসি-রোনালদো যেখানে জাতীয় দলের জার্সিতে বিবর্ণ সেখানে নেইমার ব্রাজিলের জার্সিতে খেলছেন দুর্দান্ত।

নেইমারের ‘অভিনয়ের সমালোচনা করেছেন মেক্সিকোর কোচ ওসারিও। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, একজন খেলোয়াড়ের পেছনে এত সময় নষ্ট করাটা ফুটবলের জন্যই অপমানজনক। আমার মনে হয়েছে ম্যাচের পরিচালকরা সম্পূর্ণ ব্রাজিলের পক্ষেই ছিল। আমরা বল পজিশনে ভালো ব্যবধানে এগিয়ে ছিলাম, আমরা ম্যাচটাও কন্ট্রোল করেছি। প্রথমার্ধে যেই ধারায় খেলেছি সেটি ম্যাচ পরিচালকদের কারণেই গতি হারিয়েছে।

এ সময় নেইমারের বারবার পড়ে যাওয়াকে ভাঁড়ামো হিসেবে উল্লেখ করে ওসারিও বলেন, নেইমারের একটা ফাউলের পেছনেই চার মিনিট নষ্ট করা হলো। এটা ভালো কোনো উদাহরণ হয়। এটা পুরুষদের খেলা, পুরুষত্বের খেলা। সে ভাঁড়, কিন্তু ভাঁড়ামোর জায়গা নয় ফুটবল।

তবে নেইমারের সবটা যে  অভিনয় এমনও নয়। এই তারকা এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশিবার ফাউলের শিকার হয়েছেন। গতকাল যে চোট তিনি পেয়েছেন, সেখানে স্পষ্ট তার পায়ের উপর কীভাবে বুট পরা পা নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন বিপক্ষের ফুটবলার। তবে বিপত্তিটা হচ্ছে সামান্য ব্যথার জন্য তিনি নষ্ট করেছেন ম্যাচের ৪ মিনিট।

ad