বিশ্বকাপে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার পরিসংখ্যান

neymar vs messi
ad

স্পোর্টস ডেস্ক: আর মাত্র ৪ দিন পর রাশিয়ায় শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল-২০১৮। দ্যা গ্রেটেস্ট শো অন দ্যা আর্থ নামে খ্যাত এই ক্রীড়াযজ্ঞে মেতে ওঠার অপেক্ষায় বিশ্ববাসী। বাংলাদেশেও ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে বিশ্বকাপ নিয়ে উন্মাদনা।

যথারীতি সারাদেশ ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে শুরু করেছে কথার লড়াই। হাতে গোনা কিছু মানুষ ছাড়া অধিকাংশই ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনাকেই সমর্থন করে। এই দুই দলের সমর্থকরা একে অন্যকে যুক্তি পাল্টা যুক্তি দিয়ে ঘায়েল করে নিজের সমর্থন করা দলকে সেরা বলে দাবি করছে।

এবারের আসর শুরুর আগে গত বিশ্বকাপগুলোতে এই দুই দলের পারফর্মেন্স কেমন ছিল কিংবা এখন পর্যন্ত এই আসরে কারা সেরা, এসব প্রশ্নের উত্তর পেতে হলে আশ্রয় নিতে হবে ইতিহাস এবং পরিসংখ্যানের। কেমন ছিল বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনার পথচলা তা দেখে নিন।

ব্রাজিল:

দলটির ডাক নাম সেলেসাও। ১৯৩০ সাল থেকে শুরু হয়ে এখন পর্যন্ত হওয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের ২০টি আসরের সবগুলোতে অংশ নেয়া একমাত্র দল ব্রাজিল।

ফিফা বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে সফলতম দলটি হচ্ছে ব্রাজিল। এ পর্যন্ত দলটি পাঁচবার (১৯৫৮, ১৯৬২, ১৯৭০, ১৯৯৪ ও ২০০২) বিশ্বকাপ জয় করেছে তারা, যা একটি রেকর্ড। ফুটবলের জন্ম যদি ইংল্যান্ড দিয়ে থাকে তাহলে খেলাটিকে আসলে পরিপূর্ণতা দান করেছে ব্রাজিল।

এবারের বিশ্বকাপ রাশিয়া তথা ইউরোপ মহাদেশে হওয়ার কারণে অনেকেই ভাবছেন কন্ডিশনের কারণে ইউরোপের দেশ ছাড়া অন্য কোন মহাদেশের এবার শিরোপা জিতবে না।

যারা এমনটা ভাবছেন তাদের জন্য তথ্য হচ্ছে ১৯৫৮ সালে সুইডেনে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে বিশ্বকাপে জিতেছিল ব্রাজিল। একমাত্র সেলেসাওরা ছাড়া ইউরোপের মাটিতে আর কোন দেশের শিরোপা জয়ের রেকর্ড নেই। ওই বিশ্বকাপেই দুনিয়া দেখেছিল ১৭ বছর বয়সী কালো মানিক পেলের উত্থান। সেবার বিশ্ব দেখেছিল সাম্বার ছন্দে বিশ্বকাপ জয়।

পাঁচবার শিরোপা জয়ের পাশাপাশি তারা রানার্সআপ হয়েছে দুইবার। ১৯৫০ সালে আয়োজক দেশ ছিল ব্রাজিল। সেবার তারা উরুগুয়ের কাছে হেরে যায় ফাইনালে। ১৯৯৮ সালে ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে জিদানের ফ্রান্সের কাছে হারে ব্রাজিল।

ব্রাজিলের হয়ে এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে সর্বাধিক ১৫ গোল করেছেন রোনালদো। তিনি বিশ্বকাপের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বাধিক গোলদাতা। পেলে করেছেন ১২ গোল।

টানা ১৩ ম্যাচ জয়ের রেকর্ডটি ব্রাজিলের। ১৯৫৮ সালে পেরুর সাথে জয় দিয়ে শুরুর পর ৬২ সালে ১৩ ম্যাচ পর হারে তারা। একটানা ১৮ ম্যাচে গোল করার রেকর্ডটিও তাদের। তাদের দখলে রয়েছে ফাইনালে সবচেয়ে বেশি গোল (৫) করার রেকর্ডও।

বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ জয়ের রেকর্ড ব্রাজিলের। দলটি মোট ৭০ ম্যাচ জিতেছে। এক টুর্নামেন্টে সবচেয়ে বেশি জয়ও পেয়েছে তারা। ২০০২ সালে মোট ৭ ম্যাচ জিতেছে তারা।

আর্জেন্টিনা:

১৯৭৮ এবং ১৯৮৬ বিশ্বকাপের শিরোপা জয়ী দল আর্জেন্টিনা এখন পর্যন্ত ১৬টি আসরে অংশ নিয়েছে। অনেকটা ডিয়াগো ম্যারাডোনা একক কৃতিত্বেই দেখিয়েই উজ্জীবিত করেছিল গোটা দলকে আর জিতিয়েছিলেন শিরোপা।

আয়োজক দেশ হিসেবে ১৯৭৮ সালে তাদের বিশ্বকাপ জয়ের কৃতিত্ব আছে। এখন পর্যন্ত তারা ১৯৩০, ১৯৯০ এবং ২০১৪ এই তিন বিশ্বকাপে রানার্সআপ হয়েছে। আলভিসেলেস্তেরা এবার রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু করতে যাচ্ছে ডিফেন্ডিং রানার্সআপ হয়ে।

আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সর্বাধিক ১০ গোল করেছেন গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা। ম্যারাডোনা করেছেন ৮ গোল।

বিশ্বকাপে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা দ্বৈরথ:

এখন পর্যন্ত চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী এই দুই দল বিশ্বকাপে মাত্র ৭ বার মুখোমুখি হয়েছে। এরমধ্যে ব্রাজিল জিতেছে পাঁচবার এবং আর্জেন্টিনা জিতেছে দুইবার।

১৯৮২ সালের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ব্রাজিল তাদের সবচেয়ে স্মরণীয় জয়টি পেয়েছিল। তারা ম্যাচটি জিতেছিল ৩-১ গোলে।

১৯৯০ সালের বিশ্বকাপে ব্রাজিলের বিপক্ষে আর্জেন্টিনা তাদের সবচেয়ে স্মরণীয় জয়টি পেয়েছিল। তারা ম্যাচটি জিতেছিল ১-০ গোলে।

ad