ব্যাটিং বিপর্যয় যেন টাইগারদের নিত্যসঙ্গী!

Batting disaster, Tigers,
ad

স্পোর্টস ডেস্ক: আন্টিগা টেস্টের ভুত যেন জ্যামাইকার স্যাবাইনা পার্কে এসেও তাড়াতে পারল না বাংলাদেশ। দারুণ বোলিংয়ে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩৫৪ রানেই অলআউট করে দিলেও চরম ব্যাটিং ব্যর্থতা দেখিয়ে টাইগাররা অলআউট হয়েছে মাত্র ১৪৯ রানে। ২০৫ রানের লিড পেলেও সফরকারীদের ফলোঅন না করিয়ে ক্যারিবীরা তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে করেছে ১ উইকেটে ১৯ রান।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় শুরু হওয়া ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে জোড়া উইকেট পতনের এক অদ্ভুত দৃশ্যের মঞ্চায়ন করেছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ২০ রানে পড়েছে প্রথম ও দ্বিতীয় উইকেট।

শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে লেগ বিফোর হয়ে ব্যক্তিগত ১২ রানে ফেরেন লিটন। ২ বল পরেই মুমিনুল রানের খাতা না খুলেই গ্যাব্রিয়েলের বলে হোপের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন।

শুরুর এই ধাক্কা সামাল দেয়ার চেষ্টা করেছিলেন তামিম ও সাকিব। তৃতীয় উইকেটে ৫৯ রান যোগ করে দলকে ভালো সংগ্রহের দিকেত তারা নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু দলীয় ৭৯ রানে আবারও জোড়া উইকেটের পতন। হোল্ডারের বলে ৩২ রান করা সাকিব হন বোল্ড আর ২ বল করে শূন্য রান করা রিয়াদ লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে প্যাভিলিয়নে।

পরের জোড়া আঘাত আসে দলীয় ১১৭ রানের মাথায়। ৪৭ রান করা তামিম বোল্ড হন পলের বলে। সোহান ওই একই বোলারের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন।

মুশফিক ২৪ রান করে বিফোরের ফাঁদে পড়েন হোল্ডারের বলে আর মিরাজ কামিন্সের বলে। শেষ জোড়া আঘাত দলীয় ১৪৯ রানের মাথায়। পরপর ২ বলে হোল্ডার তাইজুল এবং রাহীকে বোল্ড করে নিজের ৫ উইকেট নেন।

ক্যারিবীয়দের পক্ষে হোল্ডার ১০ ওভার ১ বলে ৪৪ রান দিয়ে নেন ৫ উইকেট। এছাড়া, গ্যাব্রিয়েল, পল ২টি এবং

এর আগে দ্বিতীয় দিনে ৪ উইকেটে ২৯৫ রান নিয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে থেকে ব্যাট করতে নামে ক্যারিবীয়রা। তারপরই শুরু হয় টাইগার বোলারদের আক্রমণ।

সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে থাকা হেটমায়ার ৮৬ রান করে রাহীর বলে সোহানের গ্লাভসে ধরা পড়ে বিদায় নেন। খানিক পরেই রাহীর বলে চেস লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন। দলীয় ৩১৮ রানে ডৌরিচ তাইজুলের বলে ধরা পড়েন মিরাজের বলে।

ঠিক পরের ওভারেই মিরাজ পরপর দুই বলে পল এবং কামিন্সকে ফিরিয়ে নিজের পাঁচ উইকেট শিকার পূর্ণ করেন এবং হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা তৈরি করেন। যদিও তা হয়নি।

৩১৯ রানের ৯ উইকেট হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজ অবশ্য শেষ উইকেট জুটিতে মূল্যবান ৩৫ রান যোগ করে। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে গ্যাব্রিয়েল বোল্ড হন রাহীর বলে। তাতে ৩৫৪ রানে থামে স্বাগতিকরা। হোল্ডার ৩৩ রানে অপরাজিত থাকেন।

মিরাজের ২৯ ওভারে ৯ মেডেনসহ ৯৩ রান দিয়ে ৫ উইকেট নেয়ার পাশাপাশি দারুণ বল করা রাহী ১৮ ওভারে ৭ মেডেনসহ মাত্র ৩৮ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। আর তাইজুল নেন ২ উইকেট। যদিও বোলারদের এই দারুণ পারফর্মেন্স ম্লান হয়েছে ব্যাটসম্যানদের চরম ব্যর্থতার কারণে।

ad