মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে বেলজিয়াম, অভিজ্ঞতায় ফ্রান্স

France-Belgium, semi-final, heat,
ad

স্পোর্টস ডেস্ক: রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবলের ২১তম আসরের প্রথম সেমি-ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে শিরোপা প্রত্যাশী ফ্রান্স ও বেলজিয়াম। ইতোমধ্যে এই ম্যাচে কারা ফেভারিট, দুই দলের শক্তি ও দুর্বলতার জায়গাগুলো কি কি, কারা মাঠে ভালো পারফর্ম করে ম্যাচের মোড় ঘোরাতে পারে, তা নিয়ে চলছে নানা বিশ্লেষণ।

ব্রাজিল, জার্মানি, আর্জেন্টিনা ও স্পেনের মতো বড় দলগুলো এবার সেমির লড়াইয়ের আগে ছিটকে পড়লেও ফ্রান্স-বেলজিয়ামের ম্যাচকে ঘিরে ঠিকই উত্তাপ ছড়াচ্ছে।

১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রান্স দলটি তারুণ্যে গড়া। গ্রিজম্যান, এমবাপ্পে, পগবা, জিরুড, উমতিতি, পাভার্ড, মাতুইদি, ভারানেদের নিয়ে গড়া এই দলটি ২০ বছর পর আবারও শিরোপা ঘরে তোলার আশা দেখছে। আর গোলপোস্টের সামনে অতন্ত্র প্রহরী হিসেবে লরিস তো আছেনই।

১৯৮৬ সালে সেমিফাইনালে খেলাটাই এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের ইতিহাসে বেলজিয়ামের বড় সাফল্য। সেই সোনালী প্রজন্ম সেখানে হেরে যায় ডিয়াগো ম্যারাডোনার আর্জেন্টিনার কাছে। তবে এবার তারা বিশ্বকাপের ট্রফিতে চুমু খাওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে আছে।

কেভিন ডি ব্রুইন, ভিনসেন্ট কোম্পানি, ইডেন হ্যাজার্ড, রোমেলু লুকাকু, বাতসুয়াই, ড্রায়েজ মার্টেনজ, আদনান জানুজাজ, জন ভার্টুনগেন, ফেলাইনি ও চাদলি এই নামগুলোই এখন বিশ্ব ফুটবলে বেশ আলোচিত হচ্ছে। তাদের নজরকাড়া পারফর্মেন্সে অনেকেই আশা করছে বেলজিয়ামের ঘরেই যাচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ। আর ব্রাজিলের বিপক্ষে গোলকিপার কর্তোয়ার দৃষ্টিনন্দন ম্যাচ বাঁচানো পারফর্মেন্সের স্মৃতি তো এখনো টাটকা।

ইতিহাস কথা বলছে বেলজিয়ামের পক্ষে। ফ্রান্সের বিপক্ষে মুখোমুখি লড়াইয়ের ইতিহাসটা যথেষ্টই দীর্ঘ বেলজিয়ামের। ৭৩ বার এর আগে দেখা হয়েছে দুই দলের। বেলজিয়ানদের ৩০টি, ফরাসিদের জয় ২৪টি। বাকি ১৯টি ম্যাচ হয়েছে ড্র।

বেলজিয়ামের সাম্প্রতিক রেকর্ড চোখ কপালে তোলার মতো। ২০১৬ সালে ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে ওয়েলসের বিপক্ষে শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ হারার পর ২৩ ম্যাচ অপরাজিত আছে মার্টিনেজের দল।

ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে পৌঁছেছে ফ্রান্স। অবশ্য শেষ চারে আগের পাঁচ লড়াইয়ের তিনটিতেই হেরেছে ফরাসিরা। ১৯৯৮ সালে ক্রোয়েশিয়া ও ২০০৬ সালে পর্তুগালকে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয় তারা। যা প্রমাণ করছে বড় ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতায় তারা বেলজিয়ামের থেকে যোজন যোজন ব্যবধানে এগিয়ে। এটা ফ্রান্সের জন্য বড় একটা সুবিধা বয়ে আনতে পারে।

এখন পর্যন্ত চলতি আসরের দলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৪টি গোল করেছে বেলজিয়াম। অপরদিকে, নিজেদের পাঁচ ম্যাচে মাত্র চারটি গোল হজম করেছে ফ্রান্স।

তাই বোঝাই যাচ্ছে ইউরোপের এই দুই দলের সেমির যুদ্ধ যে এখন রূপ নিয়েছে অঘোষিত ফাইনালে। অসাধারণ ফুটবল খেলেছে দুদল। তাই দুই দলের সুন্দর ফুটবল দেখার অপেক্ষায় বিশ্ববাসী।

ad