রিয়ালের হারের দিনে বার্সার বিশাল জয়

Barca
ad

স্পোর্টস ডেস্ক: লা লিগায় বার্সেলোনার অপরাজিত থাকার রেকর্ড অক্ষুন্ন রয়েছে। নিজেদের ৩৬তম ম্যাচে ভিলারিয়ালকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে দলটি। বার্সেলোনা জিতলেও এদিন সেভিয়ার সাথে লজ্জাজনকভাবে হেরেছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোবিহীন রিয়াল মাদ্রিদ।

বুধবার (৯ মে) রাতে ওসুমানু ডেম্বেলের জোড়া ও পলিনহো, কুতিনহো, মেসির গোলে জয় পায় বার্সেলোনা। আর রামোস ও মায়োরালের গোলের পরও সেভিয়ার সাথে ৩-২ গোলে হেরে যায় মাদ্রিদ।

নিজেদের মাঠে খেলতে নেমে শুরুতেই ভিলারিয়ালকে চেপে ধরে বার্সেলোনা। তারা এর ফলও পেয়ে যায় ম্যাচের ১১তম মিনিটে। ডান দিক থেকে পাঁচজনকে কাটিয়ে নিয়ে ডি-বক্সের একটু বাইরে থেকে গোলপোস্টে শট করেন ডেম্বেলে। গোলকিপার বলটি ঠেকিয়ে দিলেও তা চলে যায় কুতিনহোর কাছে। তিনি আর ভুল করেননি। আলতো টোকায় বল পাঠিয়ে দেন জালে।

এর ঠিক পাঁচ মিনিট পরই আসে দ্বিতীয় গোল। এবার গোলদাতা আরেক ব্রাজিলিয়ান পলিনহো। বা পাশ থেকে লুকার ডিগনির বল আলতো টোকায় পাঠিয়ে দেন জালে।  এরপর তৃতীয় গোলটি আসে মেসির পা থেকে। ইনিয়েস্তার বাড়ানো দারুণ একটি বল ডি-বক্সের ভেতর থেকে জালে জড়ান মেসি। এটি এবারের লীগে তার ৩৪তম গোল।

৩-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে দ্বিতিয়ার্ধে আক্রমণ শানাতে থাকে ভিলারিয়াল। সাফল্যও পেয়ে যায় তারা। ৫৪ মিনিটে ভিলারিয়ালের হয়ে গোল করেন সানসনে। তবে এরপর আর আক্রমণ করলেও কোনে গোলের দেখা পায়নি তারা। শেষের দিকে ডেম্বেলে জোড়া গোল দিলে ৫-১ গোলে জয় নিশ্চিত হয় বার্সার। এ নিয়ে টানা ৪৩ ম্যাচ অপরাজিত আছে কাতালুনিয়অর দলটি।

রোনালদো ইনজুরিতে পড়ে দলের বাইরে থাকায় গতকাল অন্য এক রিয়াল মাদ্রিদকে মাঠে দেখা গেছে। ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণ করে খেলতে থাকে সেভিয়া। রিয়াল বল দখলে রাখলেও তা মাঝমাঠের বেশি অতিক্রম করতে পারছিল না। এই সুযোগে ৩১ মিনিটেই লিড নিয়ে নেয় সেভিয়া।  ডি-বক্সের ভেতর থেকে নেওয়া এক শটে লক্ষ্যভেদ করেন বেন ইয়েদার।

১-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে যেন রিয়াল আরও ডিফেন্সিভ হয়ে যায়। একসময় এমন মনে হচ্ছিল তারা গোল না খাওয়অর জন্যই শুধু খেলছিল। রিয়াল স্ট্রাইকারদের নিশ্প্রভতার সুযোগে ৪৫তম মিনিটে লিড দ্বিগুণ করেন লয়ুন। বিরতির পর মাঠে নেমে আরও ধারালো হয়ে উঠে সেভিয়া। ৫২তম মিনিটে রিয়ালের একটি ভুল পাস থেকে একা বল পেয়ে যান বেন ইয়েদার। তবে গোলরক্ষক কিকো কাসিয়ার কারণে বেঁচে যায় রিয়াল।

এরপর ৫৭ মিনিটে ভাসকুয়েজকে ডি-বক্সের ভেতর সেভিয়া ফেলে দিলে পেনাল্টি পায় রিয়াল। তবে রামোসের নেয়া শট গোলপোস্টে লেগে ফেরত আসে। এরপর সেভিয়অ বেশ কয়েকটি আক্রমণ করলেও কোনো ফল আসেনি। ৮৪তম মিনিটে আত্মঘাতী গোল দিয়ে সেভিয়াকে আরও এগিয়ে দেন রামোস। শেষের দিকে রিয়াল দুইটি গোল দিলেও তা ম্যাচের ফলাফলে কোনো পরিবর্তন আনতে পারেনি।

ad