ভারতীয় বিজ্ঞাপন নিয়ে পাক সমর্থকদের আক্ষেপ

আর কিছুক্ষণ পরই ভারতের বিপক্ষে খেলতে নামছে পাকিস্তান। আজ বাংলাদেশ সময় সাড়ে ৩টায় ওল্ড ট্রাফোর্ডে মুখোমুখি হবে চিরবৈরী দুই প্রতিবেশী দেশ। এ ম্যাচকে ফাইনালের আগে ফাইনাল বলে মন্তব্য করছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা।

ইতিমধ্যে ম্যাচটিকে ‘মিনি ফাইনাল’ বলে ব্যক্তিগত মতামত জানিয়েছেন সাবেক পাক অধিনায়ক ইনজামাম উল হক।

দেশ দুটির সীমান্ত বৈরিতার প্রভাব উপচে পড়ে ২২ গজের মাঠে।

বিশ্বকাপে পাক-ভারত ম্যাচের আগেই দুই দেশের সমর্থকদের চাওয়া-পাওয়া পাল্টে যায়। তখন দাবি থাকে একটিই- বিশ্বকাপ গোল্লায় যাক আপাতত, এ ম্যাচে জয় চাই-ই চাই।

ম্যাচটি ঘিরে বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার পর থেকেই দুই দেশের মধ্যে বইছে উত্তেজনার ঝড়। দুই দেশের সমর্থকরা একে অপরকে ব্যঙ্গ করে মিম বানিয়েছেন। ট্রোল, স্যাটায়ারধর্মী পোস্টে ভেসেছে দুই দেশের সমর্থকদের টুইটার ও ফেসবুকে। বিজ্ঞাপনের মাধ্যমেও যুদ্ধও শুরু হয়েছে দুই দেশের মধ্যে। তবে শুরুটা অবশ্য ভারতই করেছে।

ম্যাচের কয়েকদিন আগে স্টার স্পোর্টসের সত্ত্বাধিকারে একটি বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে ভারত।

সেই বিজ্ঞাপনে ভারতকে ‘‌বাবা’‌ এবং পাকিস্তানকে ‘‌পুত্র’‌ হিসেবে দেখানো হয়েছে। সেই বিজ্ঞাপনে টেনে আনা হয়েছে বাংলাদেশকেও।

বিজ্ঞাপনে দেখানো হয়, বাংলাদেশের জার্সি পরা এক ব্যক্তি পাকিস্তানের জার্সিধারী ব্যক্তিকে বলছেন, ‘ভাই সপ্তম বারের মতো সুযোগ এসেছে। বিশ্বকাপে আবারও ভারতের বিপক্ষে খেলতে যাচ্ছেন, শুভ কামনা। চেষ্টা চালিয়ে যান।’

জবাবে পাকিস্তানের জার্সি পরা ব্যক্তি বলেন, ‘চেষ্টা করেই যেতে হবে। চেষ্টা যে করে সে কখনো হারে না। একদিন জয় আসবেই। আমার বাবা এই কথা বলতেন।’ এরপর ভারতীয় জার্সি পরা ব্যক্তি পাকিস্তানি সমর্থককে উদ্দেশ করে বলেন, ‘চুপ পাগলা, আমি কখন তোকে এই কথা বলেছি?’

তখন পাকিস্তানি ব্যক্তি বলেন, ‘না না, আপনি নন। আমার আব্বু এটা বলেছে...।’

বিজ্ঞাপনটি নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্যে ভেসেছে পাক সমর্থকরা । সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোর আপত্তি জানায় তারা। তবে এর পাল্টা জবাবও দিয়েছে পাকিস্তান।

পাকিস্তানি একটি টিভি চ্যানেল একটি বিজ্ঞাপন তৈরি করে। যেখানে বেশ কিছুদিন আগে কাশ্মীর সীমান্ত উত্তেজনায় পাকিস্তানের হাতে আটক ভারতীয় উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের অনুরূপ একটি চরিত্র সাজিয়ে একটি বিজ্ঞাপন তৈরি করে ওই টিভি চ্যানেলটি।

মন্তব্য লিখুন :