আয়ারল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পেল না বাংলাদেশ

বিশ্বকাপ শুরুর আগে দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশকে নাকানি-চুবানি খাইয়েছে আয়ারল্যান্ড। মুশফিক-মোস্তাফিজদের নিয়ে গড়া বাংলাদেশ দল হেরেছে ৩৩ রানের বিশাল ব্যবধানে।


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে দাপুটে ব্যাটিং করেছে আয়ারল্যান্ড। মোস্তাফিজ-নাসুমদের তুলোধোনা করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৭৮ রানের বড় লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় আইরিশরা। 


ওয়ানডাউনে নামা গ্যারেথ ডিলানি ১৭৭ রানের মধ্যে একাই করেছেন ৮৮ রান, তাও মাত্র ৫০ বলে! হাঁকিয়েছেন ৩ বাউন্ডারি ও ৮ ছক্কা। এছাড়া অ্যান্ড্র বলব্রিন ২৫, পল স্টার্লিং ২২ ও হ্যারি টেক্টর ২৩ রান করেন। নাসুম আহমেদ ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে ২ উইকেট ও নাসুম আহমেদ ৩ ওভারে ৩৩ রানে নেন ১ উইকেট।


আইরিশদের এমন দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পর বাংলাদেশের ব্যাটিং ঠিক এর উল্টোটাই বলছে। ১৭৮ রানের তাড়ায় নামা বাংলাদেশ শিবিরে প্রথম ওভারেইআঘাত হানেন আইরিশ বোলার সিএ ইয়ং।


প্রথম ওভারের পঞ্চম বলে ওপেনার নাঈম শেখকে হারায় বাংলাদেশ। ৪ বলে ৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন নাঈম। পরের ওভারেই নাঈমের অনুসরণ করেন অধিনায়ক লিটন দাস। জে লিটলের দ্বিতীয় ডেলিভারিতেই আউট হয়েই ১ রানে ফেরেন লিটন।


দলীয় ৫ রানের মাথায় ২ উইকেট হাওয়া। শ্রীলংকার বিপক্ষের ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা সৌম্য সরকারের সঙ্গী হন মুশফিকুর রহীম। কিন্তু টানা ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে পারেননি মুশফিকও।


সেই ইয়ংয়ের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হলেন তিনি। ৮ বলে ৮ রান করেই ইনিংস সমাপ্ত হয়েছে তার।


এরপর আফিফকে নিয়ে প্রতিরোধের চেষ্টা করেন সৌম্য সরকার। কিন্তু শুরুতেই স্লো হওয়ায় রানপাহাড়ে চাপা বাংলাদেশকে টেনে তুলতে পারেননি এ দুজন। আফিফ হাসান ১৬ বলে ১৭ ও সৌম্য সরকার ৩০ বলে ৩৭ করে আউট হলে ম্যাচ ফসকে যায়। শেষদিকে সোহান ২২ বলে ৩৭ করলেও শামীম-মাহাদিদের ব্যর্থতায় তা কোনো কাজেই আসেনি।


হারটা অবশ্য আরও বড় হতে পারতো। তবে শেষদিকে মোস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদের ১৬ বলে ২৪ রানের জুটিতে হারের ব্যবধান কমে আসে।