নাঈম-সাকিবের ব্যাটে লড়াইয়ের পুঁজি

আবারও ব্যাটিংয়ে হতাশার একটি দিন গেল বাংলাদেশের। তবে নাঈম ইসলাম ও সাকিব আল হাসানের ব্যাটে লড়াইয়ের পুঁজি পেয়েছে টাইগাররা।

মঙ্গলবার বাঁচা মরার লড়াইয়ে ২০ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ তুলেছে ১৫৩ রান। জিততে হলে ওমানের চাই ১৫৪ রান।

আগে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশ আজও শুরুতেই হতাশায় ডুবে। প্রথম ম্যাচের পর দ্বিতীয় ম্যাচেও ব্যর্থ হন লিটন দাস। ওমানের বিরুদ্ধে মাত্র ৬ রান করে ফিরেছেন সাজঘরে। এর দুই বল আগে তার ক্যাচ ছেড়ে দিয়েছিল ওমান।

বাংলাদেশ দলীয় ১১ রানে হারিয়েছে প্রথম উইকেট। ১০ রান যোগের পরই হারাতে হয় দ্বিতীয় উইকেট। ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পাওয়া মাহদি হাসান ৪ বলে করেন ০ রান।

এরপর সাকিবকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়েন নাঈম ইসলাম। তৃতীয় উইকেট জুটিতে তারা তুলেন মূল্যবান ৮০ রান। তখন মনে হচ্ছিল বড় রানের দেখা পাবে বাংলাদেশ। তবে তখনই ঘটে বিপত্তি। শর্টে টোকা দিয়ে সিঙ্গেল নিতে গিয়ে রানআউট হন সাকিব। ২৯ বলে তিনি করেন ৪২ রান।

এরপর শুরু হয় আসা যাওয়ার লড়াই। ৫ বলে ৩ রান করে বিদায় নেন সোহান। পঞ্চম উইকেট পড়ে ১২০ রানের মাথায়। ৫ বল খেলে ১ রান করে বিদায় নেন আফিফ।

দলের খাতায় ২ রান যোগ করে ওমানের ক্রিকেটারদের ক্যাচ প্রাকটিস করিয়ে ফেরেন নাঈম। এর আগে তার দুইটি ক্যাচ ছেড়ে দেয় ওমান। তিনি ৫০ বলে করেন ৬৪ রান। এরপর ওমানের উইকেটকিপারকে ক্যাচ প্রাকটিস করিয়ে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক।

তাতে বড় সংগ্রহের আশা ধুলোয় মিশে যায়। শেষ পর্যন্ত মাহমুদুল্লাহর ১০ বলে ১৭ রানের ইনিংসে ভর করে ১৫৩ রান তুলতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। ওমানের বিলাল খান ৪ ওভারে ১৮ রানে ৩ উইকেট ও ফায়াজ বাট ৪ ওভারে ৩০ রানে নেন ৩ উইকেট।