সাকিবের ছুটি মঞ্জুর, অসন্তুষ্ট পাপন

পাকিস্তানের বিপক্ষে চলমান ঢাকা টেস্ট শেষ করেই দুই টেস্টের সিরিজে অংশ নিতে নিউজিল্যান্ড সফরে যাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

সেই সফরকে সামনে রেখে ১৮ সদস্যের দলে রাখা হয় সাকিব আল হাসানকে।

কিন্তু তিনি নিউজিল্যান্ড সফরে যেতে চান না বলে আনুষ্ঠানিক ছুটি চেয়ে বিসিবিকে চিঠি দেন।

তার সেই চিঠি মঞ্জুর করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সোমবার সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

তবে পুরো বিষয়টি নিয়ে জলঘোলা হওয়ায় খানিক অসন্তোষও দেখা গেছে বিসিবি সভাপতির কণ্ঠে। কোনো খেলোয়াড় ছুটি চাইলে তাতে বোর্ডের আপত্তি নেই জানালেও, সেই ছুটির বিষয়টি আগে জানাতে বলেছেন পাপন। যাতে করে বিকল্প খেলোয়াড় খুঁজতে পারে টিম ম্যানেজম্যান্ট।

পাপনের ভাষ্য, ‘আগে থেকেই বলে আসছি, কেউ যদি ছুটি চায়, খেলতে না চায়, বিশ্রাম চায়, বিরতি চায়- আমাদের কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু সেটি আনুষ্ঠানিকভাবে হতে হবে। আমরা বিষয়টি আগাম জানতে চাই। হঠাৎ করে জানলে আমাদের জন্য কঠিন।’

এসময় নতুন বছর ছুটির বিষয়ে নতুন নিয়ম প্রবর্তনের ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেন, ‘আগামী জানুয়ারিতে থেকে আমরা যে জিনিসটা করছি, সেটা হচ্ছে কারো যদি বিশ্রাম-বিরতি লাগে আমাদের আগে থেকে জানাতে হবে। তাহলে আমরা অন্য খেলোয়াড়কে প্রস্তুত করতে পারবো।’

তিনি বলেছেন, ‘যার বিশ্রাম দরকার তাকে বিশ্রাম দিতেই হবে; গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হোক বা না হোক। সাকিবের বিষয়টা ভিন্ন। ও তো আর ইনজুরিতে না, বিশ্রামও চায়নি। ও বিরতি চেয়েছে, পারিবারিক কারণে ছুটি চেয়েছে, বিরতি চেয়েছে। কাজেই জিনিসটা কিন্তু এক নয়। এটা ইনজুরিও না, বিশ্রামও না।’

এসময় সাকিবের ছুটি ও স্কোয়াডে রাখা নিয়ে জল ঘোলা হওয়ার বিষয়ে পাপন বলেন, ‘অনানুষ্ঠানিকভাবে আমরা জানতাম। এতোদিন ধরে সবকিছু অনানুষ্ঠানিকভাবেই হয়ে আসছে। যার কারণে অনেক দ্বিধাদ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়। এটি যেন না হয়, তাই জোর দিয়ে বলা হচ্ছে তারা যেন আনুষ্ঠানিকভাবে জানায়।’