ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র আঘাতে মৃতের সংখ্যা ৮

mora dead 8
ad

জাগরণ ডেস্ক: ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’য় কক্সবাজার, রাঙামাটি ও ভোলায় আটজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সরকারি বিভিন্ন দপ্তর থেকে আটজনের মৃত্যুর খবর গেছে। এর মধ্যে কক্সবাজারে পাঁচজন, রাঙামাটিতে দুজন এবং ভোলায় এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন শতাধিক মানুষ।

জানা গেছে, মোরা’র আঘাতে কক্সবাজারে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। চকরিয়ায় গাছ চাপা পড়ে রহমত উল্লাহ (৫০), সায়রা খাতুন (৫৫), আবদুল হামিদ (৩০) ও শাহানা আকতার (১৩) নামের চার জনের মৃত্যু হয়। রহমত উল্লাহ ডুলাহাজারা পূর্ব জুমখালী এলাকার আব্দুল জব্বারের ছেলে এবং সায়রা খাতুন বড় ভেওলা ইউনিয়নের সিকদার পাড়া এলাকার মৃত নুরুল আলমের স্ত্রী।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) কামরুল আজম জানান, নিহত আব্দুল হামিদ পেকুয়া উপজেলার মোজাফফর আহমেদের ছেলে ও শাহানা আক্তার কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদ ইউনিয়নের মধ্যম গজারিয়ার শাহ জাহানের মেয়ে।

রাঙামাটিতে ঘূর্ণিঝড় মোরার আঘাতে রাঙামাটি শহরের পৃথক দু’টি স্থানে গাছের চাপায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন গৃহবধূ হাজেরা বেগম (৪৫) ও স্কুলছাত্রী জাহিদা সুলতানা (১৪)।

ভোলার মনপুরা আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পথে মায়ের কোলে এক বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় মোরা আতঙ্কে স্থানীয় আবাসন বাজার থেকে ছালাউদ্দিনের স্ত্রী জরিফা খাতুন তার এক বছর বয়সী ছেলে রাশেদমনিকে কোলে নিয়ে সোমবার রাত ১টার সময় আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য রওনা দেন। মনপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পথে প্রচণ্ড বৃষ্টি ও ঠাণ্ডা বাতাসে শিশুটির ঠাণ্ডা লেগে যায়। ঠাণ্ডায় শিশুটি আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পথেই মারা যায়।

ad