ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারী, পরগাছা ঠেকাও: কাদের

BCL, infiltrator, weed, stop, Kader
ad

জাগরণ ডেস্ক: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ছাত্রলীগে সর্বস্তরে সাহসী, মেধাবী ও চরিত্রবানদের নেতা বানাও। অনুপ্রবেশকারী, পরগাছা ঠেকাও। তারা যেন সংগঠনের নেতৃত্বে আর না আসতে পারে। পরগাছাদের জন্য ছাত্রলীগ কোনো সুযোগ দেবে না।

রবিবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসটি অডিটোরিয়ামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সম্মেলনে তিনি এ পরামর্শ দেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কোনো সিন্ডিকেটের কথায় ছাত্রলীগ চলবে না। ছাত্রলীগ চলবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে, শেখ হাসিনার নির্দেশনায়। এর বাইরে কোনো ভাবনা-চিন্তা করার অবকাশ নেই। ত্যাগী ও যোগ্য নেতৃত্ব হতে হবে ছাত্রলীগারদের। কারো পকেটের লোক দিয়ে ছাত্রলীগের কমিটি হবে না।

তিনি বলেন, আমি নেতৃবৃন্দদের বলব- আপনারা আপনাদের পূর্বসুরিদের কথা ভাবুন। নেতা বানিয়ে যাবেন। কিন্তু, আপনি যখন বিদায় নিবেন, তখন নতুনরা আপনাকে কি চোখে দেখবে, সেটা একবার ভেবে দেখুন।
সোহাগ ও জাকিরকে বলবো, তোমরা ভালো কিছু করে যাও। ভালো কিছু দিয়ে যাও।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, চলে গেলে বা বিদায় নিলে অনেকেই অনেক কিছু ভুলে যায়। টাকা পয়সার কর্মী থাকবে না, আদর্শের কর্মীরা থাকবে। জবরদস্তি করে অযোগ্যকে নেতা বানাবেন, দুঃসময়ে হাজার পাওয়ারের বাতি জালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না।

তিনি আরও বলেন, যদি আমরা ‘সারভাইব’ করতে চাই, তা হলে ছাত্রলীগকে রাজনৈতিক আদর্শের মহাসড়কে ফিরে আসতে হবে। সুনামের ধারায় ফিরে আসতে হবে। ছাত্রলীগকে তার ঐতিহ্যের ধারায় ফিরে আসতে হবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, আগামী নির্বাচনে ভোটার বাড়াতে হলে যোগ্য, সাহসী, চরিত্রবান নেতা দরকার। আমি বর্তমান কমিটির অর্জনকে অস্বীকার করছি না। যারা সাবেক হবে সব নেতাকে আমরা নেতা বানাবো। সব নেতাকে আমরা উপ-কমিটিতে স্থান দিবো। আমি কথা দিলাম, তোমরা কেউ যদি তাতেও স্থান না পাও, তাহলে আমার সঙ্গে কাজ করবে। কর্মীর মূল্যায়ন আওয়ামী লীগ করতে জানে। শেখ হাসিনা যতক্ষণ আছেন, যোগ্য কর্মীর মূল্যায়নও ততদিন থাকবে।

ad