ঢাবির ভিসির বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর: গ্রেপ্তার ৪ জন রিমান্ডে

VC, residence, attack
ad

জাগরণ ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে কোটাবিরোধী আন্দোলনের মধ্যে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় ঢাকা আলিয়া মাদ্রাসার এক ছাত্রসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারের পরে তাদেরকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রবিবার (২৯ এপ্রিল) তাদেরকে আদালতে হাজির করে প্রত্যেকের ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে ডিবি পুলিশ।শুনানি শেষে  ঢাকা মহানগর হাকিম রায়হানুল ইসলাম তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রাকিব(২৬), মো. আলী হোসেন শেখ ওরফে আলী(২৮), মো. মাসুদ আলম ওরফে মাসুদ(২৫) এবং আবু সাইদ ফজলে রাব্বী ওরফে সিয়ামকে (২০)। রাকিবের নামে বরিশাল ও লক্ষ্মীপুরে ৫টি মামলা রয়েছে ।

আদালত শুনানি শেষে রাকিবের ৪ দিন, আলীর ৩ দিন এবং মাসুদ ও সিয়ামের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদের মধ্যে কেউ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নয়। তাদের দুজনের কাছ থেকে ওই রাতে উপাচার্যের বাসা থেকে লুট হওয়া দুটি মোবাইল পাওয়া গেছে।

গত ১০ এপ্রিল ২০১৮ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র সিকিউরিটি অফিসার এস এম কামরুল আহ্সান এর দায়ের করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

শাহবাগ থানায় করা মামলার অভিযোগে বলা হয়, ৯ এপ্রিল রাতে অজ্ঞাতনামা মুখোশধারী সন্ত্রাসী ও দুষ্কৃতকারীরা হাতে লোহার রড, পাইপ, হেমার, লাঠি ইত্যাদি নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের বাসভবনের দেয়াল টপকে ভেতরে ঢোকে।

ভবনের মূল ফটকের তালা ভেঙে ভবনের ভেতরে অনধিকার প্রবেশ করে বাসভবনের মূল্যবান জিনিসপত্র, আসবাব, ফ্রিজ, টিভি, লাইট, কমোড, বেসিনসহ অনেক মালামাল ভাঙচুর করে ক্ষতিসাধন করে এবং মূল্যবান সম্পদ লুটতরাজ করে।

তাছাড়া, ভবনে রক্ষিত দুটি গাড়ি পুড়িয়ে দেয় এবং আরও দুটিটি গাড়ি ভাঙচুর করে। ভবনে রক্ষিত সিসিটিভি ক্যামেরাগুলো ভেঙে ফেলে এবং সিসি ক্যামেরার ডিভিআরগুলো আগুনে পুড়িয়ে নষ্ট করে ফেলা হয়।

ad