নরসিংদীতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ

Narsingdi, Dhaka-Sylhet highway, block,
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নরসিংদীর শীলমান্দী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান সৈকত হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করেছে বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী।

শুক্রবার (২৭ এপ্রিল) সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত মহাসড়কের সদর উপজেলার পাচদোনা শীলমান্দী এলাকায় এ অবরোধ করা হয়।

ওই সময় মহাসড়কের উভয় পাশে পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে ভোগান্তিতে পড়ে মহাসড়কের চলাচলরত যাত্রীরা। খবর পেয়ে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা দ্রুত হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয়া হয়।

Narsingdi, Dhaka-Sylhet highway, block,

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। শীলমান্দী ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নিহতের মা জ্যোৎস্না বেগম এবং নিহতের স্ত্রী ফাহমিদা আক্তার নিশি।

তারা বলেন, সৈকতকে দুস্কৃতিকারীরা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করেছে। কিন্তু ঘটনার এক মাস পেরিয়ে গেলেও খুনিদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। প্রশাসনের নিশ্চুপ ভূমিকা আমাদের উদ্বিগ্ন করে তুলছে। আমরা এ ঘটনা সুষ্ঠ তদন্ত ও হত্যাকান্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

Narsingdi, Dhaka-Sylhet highway, block,

মানববন্ধন থেকে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে আসামীদের গ্রেপ্তার করা না হলে আরও কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা দেয়ার পর বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে গাছের গুড়ি ফেলে, শুয়ে ও বসে অবরোধ সৃষ্টি করেন। ওই সময় তারা হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

খবর পেয়ে নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুজ্জামান ও পরিদর্শক (তদন্ত) সালাউদ্দিন মিয়া ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তারা দ্রুত হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, গত ২৭ মার্চ বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে নির্যাতন করে হত্যা করা হয় যুবলীগ নেতা মাহমুদুল হাসান সৈকতকে। নিহত যুবলীগ নেতা মাহমুদুল হাসান সৈকত দক্ষিণ শীলমান্দি গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে। এ ঘটনায় নিখোঁজ এখনও রয়েছেন একই এলাকার বাসিন্দা সুজন সরকার।

ad