নরসিংদীতে দুই গ্রামবাসীর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে টেটাবিদ্ধ ২০

teta
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নরসিংদী সদর উপজেলায় এলাকার প্রভাব বিস্তার নিয়ে দুই দল গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২০ জন টেটাবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন। তিনটি বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাট হয়েছে।

শুক্রবার (১ জুন) সকাল সাড়ে ৮টায় সদর উপজেলার দুর্গম চর এলাকা নজরপুর ইউনিয়নের আলিপুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে কামাল মেম্বার সমর্থক রফিক মিয়া (৭০), লতিফ মিয়া (৬০), জাকির হোসেন (২৮), মফিজ মিয়া (৫০), মনসুর আলী (২৮), এমরান (২৫), সালাউদ্দিন (২৫), জাহিদ (২৭) এবং কাজী করিম ও সাবেক ইউপি মেম্বার আজমল মিয়ার সমর্থক কাজী ফুল মিয়া (৩৫), কাজী অহিদুল্লাহ (১৮), আব্দুল খালেক ( ৪৫) কে নরসিংদী সদর হাসপাতালে এবং অন্যদেরকে বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

narshingdi teta .jpg 2

জানাগেছে, ওই ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার আজমল মিয়া ও তার সমর্থক কাজী করিমের সাথে একই গ্রামের বর্তমান ইউপি মেম্বার কামাল মিয়ার এলাকার প্রভাব বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের হিসেবে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

শুক্রবার সকালে কাজী করিম ও সাবেক ইউপি মেম্বার আজমল মিয়ার সমর্থকরা দা, লাঠি, টেটা বম্লম সহ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে বর্তমান ইউপি মেম্বার কামাল মিয়া ও তার সমর্থকদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ছাত্তার মিয়া, লিটন মিয়া ও রহমান মিয়ার ঘরে ব্যাপক ভাঙচুর করে এবং মফিজ মিয়ার একটি গরু লুটে নেয়। এ সময় উভয় পক্ষের কমপক্ষে ২০ জন টেটাবিদ্ধ হয়ে আহত হন।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ওসি সৈয়দুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গ্রামবাসী জানায়, এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোনো সময় আবারও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটতে পারে। দুই পক্ষই রণ সাজে তৈরী হয়েছে।

ad