নৌ মন্ত্রণালয়ে সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া: আইনমন্ত্রী

Law minister
ad

জাগরণ ডেস্ক: আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সড়ক পরিবহন আইন আইন করা হচ্ছে। আইনের খসড়াটি আইন মন্ত্রণালয় থেকে ভেটিং করে (সংবিধান বা চলমান কোনো আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি না যাচাই-বাছাই করে) আজ নৌ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। 

বুধবার (১ আগস্ট) নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, নৌ মন্ত্রণালয় থেকে আইনটি মন্ত্রীসভায় প্রস্তাব করা হবে। প্রধানমন্ত্রী চান, আইনটি দ্রুত পাস হোক এবং অপরাধীরা শাস্তি পাক। একটি সড়ক দুর্ঘটনায় যে শাস্তি হওয়া উচিত, তার সর্বোচ্চটাই থাকছে এই সড়ক পরিবহন আইনে। আইনটিতে দ্রুতগতিতে বিচারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

আইনমন্ত্রী বলেন, কোনো অপরাধী আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে যাতে বেরিয়ে যেতে না পারে, সে ব্যবস্থাও এ আইনে থাকছে। কেউ বড় অপরাধ করে কম শাস্তি পাবে না। আবার ছোট অপরাধ করে বড় শাস্তি পাবে না। চালকের ভুলের শাস্তি হিসেবে আইনটিতে ১২টি বিধান রাখা হয়েছে। এই আইনটা অত্যন্ত আধুনিক।

সড়ক পরিবহন আইনের প্রয়োগ কেমন হতে পারে সেই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যেমন ধরেন, বিদেশে চালকদের ভুল যদি হয় তাহলে একবারেই তাকে জেল-হাজত বা ওখানে যে রকম আছে পয়েন্ট, এখানেও ১২ পয়েন্ট রাখা আছে এবং অপরাধের সঙ্গে সেই পয়েন্ট কাটা যাবে। যদি তার ১২ পয়েন্ট কেটে যায় তাহলে সে আর কোনোদিন ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবে না। ৩ পয়েন্ট কাটলে কী হবে- এরকম একটা বিধান করে দেয়া হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের সবসময় দেখতে হয় অল্প অপরাধে বেশি শাস্তি হয়ে না যায়, আবার বেশি অপরাধে কম শাস্তি না হয়। সেগুলো অত্যন্ত সুচিন্তিতভাবে সুবিন্যাস করা হয়েছে। বিচারের তাৎক্ষণিকতা বা তড়িৎ বিচারের ব্যবস্থা এই আইনের মধ্যে করা হয়েছে। আমার মনে হয় এই আইনটা যদি অনুমোদিত ও সংসদে পাস হয় তাহলে আমার ধারণা সব স্টেকহোল্ডার ন্যায়বিচার পাবেন।

ad