বন্দুকযুদ্ধে অস্ত্র চুরি ও ধর্ষণ মামলার ২ আসামী নিহত

Gun fight
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জে পুলিশের টহল গাড়ি থেকে অস্ত্র চুরি মামলার আসামী ও ফেনীতে ধর্ষণসহ একাধিক মামলার এক আসামী বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৫ মে) রাতে ফতুল্লার আলামিন নগর এলাকায় ও বুধবার (১৬ মে) ভোরে দাগনভূইয়া উপজেলার খুশিপুর গ্রামে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা দুইটি ঘটে।

নিহতরা হলেন- পুলিশের অস্ত্র চুরি মামলার আসামী ফতুল্লার দাপা ইদ্রাকপুর এলাকার সোবহান মিয়ার ছেলে পারভেজ (২৪) ও ছয় মামলার আসামী দাগনভুঁইয়া উপজেলার খুশিপুর গ্রামের শাহ আলমের ছেলে মুসা আল মাসুদ (৩৮)।

জানা যায়, গত রবিবার রাতে ফতুল্লার বালুর মাঠে দায়িত্ব পালনের সময় গাড়ি থেকে কনস্টেবল সোহেল রানার রাইফেল খোয়া যায়। পরদিন সেখানকার একটি ডোবার পাশ থেকে অস্ত্রটি উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পারভেজসহ তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়।

ফতুল্লা থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, রাত দেড়টার দিকে আলামিন নগর এলাকায় ছিনতাইকারীদের দুই পক্ষে গোলাগুলির খবর আসে। এ সময় পুলিশ সেখানে গেলে ছিনতাইকারীরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়।পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে মাদক বিক্রেতা ও ছিনতাইকারী পারভেজ আহত হন। তাকে নারায়ণগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

দাগনভুঁইয়া থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, এক প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের মামলায় মুসাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।ভোরে তাকে নিয়ে খুশিপুর গ্রামে অন্য আসামীদের ধরতে গেলে তার লোকজন পুলিশের দিকে গুলি ছোড়ে। পুলিশ পাল্টা গুলি ছোড়ে। বন্দুকযুদ্ধে ঘটনাস্থলেই মুসা মারা যান। আর চার পুলিশ আহত হয়।

ad