বাসে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি: চালক-হেলপারকে গণপিটুনি

Bus
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: চট্টগ্রামে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে বাস চালক ও হেলপারকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। এ সময় বাসটিও ভাঙচুর করা হয়।

শনিবার (৫ মে) দুপুর দেড়টার দিকে বহদ্দারহাটগামী ১০ নম্বর বাসে এ ঘটনা ঘটে।

আটককৃতরা হলো- বাস চালক মো. রাসেল (২৬) ও হেলপার মো. হানিফ (২৮)।

সূত্র জানায়, বন্দর টিলা হাসপাতাল গেট এলাকা থেকে ১০ নম্বর রুটের ওই বাসে উঠে এক ছাত্রী। গাড়িতে তখন মাত্র দুজন যাত্রী ছিল। কিছুদূর চলার পর সন্দেহ হওয়ায় সে গাড়ি থেকে নেমে যাওয়ার চেষ্টা করে।

এ সময় ওই ছাত্রীকে বাস থেকে নামতে বাধা দেয় হেলপার। এ সময় সে ওই ছাত্রীর গায়েও হাত দেয়। তাৎক্ষণিক এর প্রতিবাদ জানালে চলন্ত বাসে চালক ও হেলপার ওই ছাত্রীর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। এ খবর শুনে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াসা ক্যাম্পাসের সহপাঠিরা ওয়াসা এলাকায় বাসটি আটক করে। এ সময় জনতা বাসটি আটক করে বাস চালক ও হেলপারকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

চকবাজার থানার ওসি নূরুল হুদা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে বাসে শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে চালক ও সহকারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছি। তবে এ বিষয়ে এখনও কোনো মামলা হয়নি।

ad