ভারত থেকে মরা পশুর মাংস আসে বাংলাদেশে!

Vagar
ad

জাগরণ ডেস্ক: ভারত থেকে মরা পশুর মাংস বাংলাদেশে আসে বলে খবর প্রকাশ করেছে একটি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। শুধু বাংলাদেশ নয় মরা পশুর মাংসগুলো ভারতের বিভিন্ন হোটেল ও নেপালেও বিক্রি করা হতো।

জানা যায়, কয়েকদিন আগে বিহারের একটি ভাগার থেকে মরা পশুর মাংস ওই এলাকার হোটেলগুলোতে যাচ্ছে বলে খবর পায় সেদেশের পুলিশ। এরপর সেখানে অভিযান চালিয়ে আটক করা দুইজনকে। তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী বিহারের নওদা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় এ কাণ্ডে জড়িত মূলহোতা সানিকে। তার দেয়া তথ্যে জানা যায়, শুধু বজবজ নয়, ভাগাড়ের মাংস যেত ট্যাংরা, কাঁকিনাড়া, জগদ্দলসহ একাধিক এলাকায়। এরপর খোঁজ মেলে হিন্দুস্তান কোল্ড স্টোরের। সেখানে রাখা হতো এসব মাংস।

যেভাবে ছড়ানো হতো এসব মাংস:

জানা যায়, প্রথমে বিহারে মরা পশু রাখার ভাগাড়গুলো থেকে মাংস সংগ্রহ করা হতো। এরপর হিমঘর ভাড়া নিয়ে সেখানে জমা রাখা হতো টনকে টন মাংস। প্রথমে মরা পশুর মাংসকে বিভিন্ন রাসায়নিকের সাহায্যে প্রক্রিয়াকরণ করা হত। পরে তা প্যাকেটজাত করে রাখা হত হিমঘরেই। এরপর এই মাংসই চালান হত সস্তার হোটেলে।

এরপর বাংলাদেশ ও নেপালেও পাচার হতো এই মাংস। টাটকা মাংসের সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া হত এই ভাগাড়ের পচা মাংস। পুরো ব্যবসায় মধ্যস্থতা করত বেশ কয়েকজন।

এদিকে, এই মাংস পাচারের সাথে জড়িত আন্তর্জাতিক লিংম্যানদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। পুলিশের অনুমান, যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা ছাড়াও এই চক্রে আরও বড় মাথারা যুক্ত।

ad