মন্ত্রীসভায় নতুন সড়ক পরিবহন আইন পাস সোমবার: কাদের

Jagoran- Cabinet, road transport law, pass, Monday,
ad

জাগরণ ডেস্ক: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়ে সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রেখে নতুন সড়ক পরিবহন আইন পাস হচ্ছে। আগামী সোমবার মন্ত্রীসভায় এবং পরবর্তী সংসদ বসলে এ আইন পাস করা হবে।

শনিবার (৪ আগস্ট) ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে আয়োজিত সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ আছে কোমলমতি এই ছোট ছেলে-মেয়েদের ওপর কোনো দমনমূলক পদক্ষেপ নেয়া যাবে না। সেই কারণে পুলিশ নানাভাবে অপদস্থ এবং হয়রানির শিকার হয়েও রাজনৈতিক অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে ধৈর্য ধারণ করছে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের নয়টি দাবির মধ্যে এরই মধ্যে কয়েকটি বাস্তবায়নের শুধু উদ্যোগ নয়, প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে শেষ পর্যন্ত আমরা ধৈর্য ধরে যাব। আমরা আশা করছি দুই একদিনের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, চালকদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। আইন আনুযায়ী বিচারের আওতায় এনে তাদের বিচারকাজ সম্পন্ন করার বিষয়ে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নিহতদের পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণও দেয়া হয়েছে। আন্দোলনকারীদের সব দাবি মেনে নিয়েছি। অনেকগুলো বাস্তবায়নের পথে। তাই তাদের বলবো অনেকে ঘরে ফিরেছে, তোমরাও ঘরে ফিরে যাও। ছাত্ররা ঘরে ফিরলেই পরিবহন ব্যবস্থা স্বাভাবিক হবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, কোমলমতি ছাত্রদের আন্দোলনে যখন অনুপ্রবেশকারী ঢোকে এবং সহিংস ঘটনা ঘটায় তখন ছাত্রদের সেটা দেখতে হবে এবং একইসঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তা না হলে সরকার ব্যবস্থা নেবে।

তিনি আরও বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত এলাকায় আন্ডারপাস করার কাজও করা হচ্ছে, এটি সেনাবাহিনী করছে। স্পিড ব্রেকারের দাবির প্রেক্ষিতে সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে রাম্বল স্ট্রিটও করা হবে। ফিটনেসবিহীন সব গাড়ির রুট পারমিট বাতিল করা হবে। ইতোমধ্যে বিআরটিএ এর কাজও শুরু করেছে।

নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, তিনি ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের বাড়িতে গেছেন এবং আর্থিকভাবে সহযোগিতা করেছেন। এরপর আর কি বলার থাকে?

ad