মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী রথিশ চন্দ্র নিখোঁজ

Hosieo Kuni, murder case, chief lawyer, missing,
ad

জাগরণ ডেস্ক: রংপুরের কাউনিয়ায় জাপানি নাগরিক হোসিও কুনি ও মাজারের খাদেম রহমত আলী হত্যা মামলার প্রধান আইনজীবী এবং রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক রথিশ চন্দ্র ভৌমিক বাবুসোনা শুক্রবার (৩০ মার্চ) সকাল থেকে নিখোঁজ রয়েছেন। তিনি মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষীও ছিলেন। গভীর রাত পর্যন্ত তার কোনো খোঁজ না পেয়ে স্বজনরা থানায় জিডি করেছেন।

শনিবার (৩১ মার্চ) সকালে তার সন্ধানের দাবিতে ঢাকা-কুড়িগ্রাম মহাসড়ক ও ঢাকা-রংপুর রেলপথ অবরোধ করেন রংপুরের আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। রথিশ চন্দ্র ভৌমিক বাবুসোনার সন্ধানের জন্য পুলিশ বিকাল ৪টা পর্যন্ত সময় নিয়েছে- সেই আশ্বাসে মহাসড়ক থেকে সরেছেন বিক্ষুব্ধরা।

অ্যাডভোকেট বাবু সোনার স্ত্রী দীপা ভৌমিক জানান, শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে কাজের কথা বলে তার স্বামী বাইরে যান। কিছুক্ষণের মধ্যেই ফিরে আসবেন বলে বাসা থেকে বের হন। এরপর তিনি পায়জামা-পাঞ্জাবি পড়া এক ব্যক্তির সঙ্গে একটি লাল মোটরসাইকেলে করে চলে যান। এরপর আর তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। তার মোবাইল ফোনটিও বন্ধ রয়েছে।

নিখোঁজ আইনজীবীর ছোট ভাই সাংবাদিক সুশান্ত ভৌমিক জানান, তিনি জরুরি কাজে শুক্রবার ঢাকায় গিয়েছিলেন। সেখানে থাকাবস্থায় ভাইয়ের নিখোঁজ হওয়ার খবর পান। এর পর শুক্রবার রাতেই ঢাকা থেকে বিষয়টি ফোনে রংপুরের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমানকে জানান।

রথীশ চন্দ্র ভৌমিক বাবুসোনা জঙ্গিদের হাতে নিহত জাপানি নাগরিক হোসিও কুনি ও মাজারের খাদেম রহমত আলী হত্যা মামলা পরিচালনাকারী প্রধান আইনজীবী ছিলেন। তার নেতৃত্বে ওই দুই মামলায় সাত জঙ্গির ফাঁসি হয়েছে।

রংপুর কোতোয়ালি থানার ওসি বাবুল মিয়া বলেন, নিখোঁজ আইনজীবীর জঙ্গিদের মামলা পরিচালনার বিষয়টিসহ বিভিন্ন বিষয় মাথায় নিয়ে আমরা কাজ করছি। তার মোবাইল ফোনটিও ট্রাকিং করে দেখা হচ্ছে। এছাড়া অ্যাডভোকেট বাবুসোনাকে উদ্ধারে পুলিশ, র‌্যাব ও পিবিআইসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে।

ad