মালিতে নিহত শান্তিরক্ষী রায়হানের বাড়িতে শোকের মাতম

rayhan
ad

স্থানীয় প্রতিনিধি: আফ্রিকার দেশ মালির দোয়েঞ্জায় ভয়াবহ মাইন বিস্ফোরণে নিহত চার বাংলাদেশী শান্তিরক্ষীর মধ্যে রায়হান প্রামানিকের বাড়ি পাবনার সাঁথিয়া উপজেলায়। সে কাশিনাথপুরের সোমাসনারী গ্রামের মোসলেম প্রামানিকের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) ভোরে রায়হানের মৃত্যুর সংবাদ তার গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে স্বজনদের কান্না আর আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারি হয়ে যায়। সৃষ্টি হয় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের।

রায়হানের মামাতো ভাই নান্নু হোসেন জানান, রায়হানের সহকর্মী হাবিব মোবাইলে মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, নিহত রায়হান দুই কন্যা সন্তানের জনক ছিলেন। তার বড় মেয়ের বয়স ৮ বছর ও ছোট মেয়ের বয়স ২ বছর। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে রায়হান সবার বড়। ছোট ভাই কুয়েত প্রবাসী।

রায়হানের বোন আখিঁ খাতুন জানান, বুধবার বাবার সঙ্গে রায়হান শেষ কথা বলেন। ভোরে তার মৃত্যুর খবর আসে। রায়হান মালিতে অবস্থান করছেন ১০ মাস। ২ মাস পরেই তার দেশে ফিরে আসার কথা ছিল।

উল্লেখ্য, বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় আড়াইটার দিকে আফ্রিকার দেশ মালিতে সড়কের পাশে পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে চার বাংলাদেশী শান্তিরক্ষী নিহত ও আরও চারজন আহত হয়।

নিহতরা হলেন ওয়ারেন্ট অফিসার আবুল কালাম, পিরোজপুর (৩৭ এডি রেজি. আর্টি.); ল্যান্স কর্পোরাল আকতার, ময়মনসিংহ (৯ ফিল্ড রেজি. আর্টি.), সৈনিক রায়হান, পাবনা (৩২ ইবি) ও সৈনিক (পাচক) জামাল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ (৩২ ইবি)।

আহতরা হলেন কর্পোরাল রাসেল, নওগাঁ (৩২ ইবি), সৈনিক আকরাম, রাজবাড়ি (৩২ ইবি), সৈনিক নিউটন, যশোর (১৭ বীর) ও সৈনিক রাশেদ কুড়িগ্রাম (৩২ ইবি)। আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে আইএসপিআর জানিয়েছে।

ad