থানায় নারীকে নগ্ন করে বেল্ট দিয়ে পেটাল পুলিশ!

ভারতের গুরুগ্রামের থানার লক-আপে আসামের এক মহিলার উপর নৃশংস অত্যাচারের অভিযোগ উঠেছে। ভিকটিমের পরিবারের অভিযোগ, ওই নারীকে চুরির অপবাদ দিয়ে থানায় নিয়ে নগ্ন করে পেটানো হয়েছে পরনের বেল্ট দিয়ে।

এ ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার।

ডিএলএফ ফেস ওয়ান এলাকার একটি বাংলোতে পরিচারিকা হিসেবে কাজ করত ৩০ বছর বয়সি অসমের মেয়েটি। তিনি ওই বাড়িতে চুরি করেছেন বলে অভিযোগ করে তাঁকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

মহিলাটির স্বামীর অভিযোগ, তদন্তকারী অফিসার মধুবালা আমার স্ত্রীকে থানায় ডেকে পাঠান। থানায় পৌঁছনোর পরই তাঁকে একটি ঘরে নিয়ে যাওয়া হয়। নগ্ন করে নৃশংসভাবে তাঁকে বেল্ট ও লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়। যে অপরাধ তিনি করেননি, তা স্বীকার করে নেওয়ার জন্য তাঁর উপর জোর খাটানো হয়।

মহিলাটির অভিযোগ, তার যৌনাঙ্গেও মেরেছে পুলিশ। এমন সব স্থানে মারা হয়েছে যা তিনি কাউকে দেখাতেও পারছেন না।

বুধবার গুরগাঁওয়ের পুলিশ কমিশনার মহম্মদ আকিলের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখান উত্তর-পূর্বের কিছু মানুষ। এরপরই বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেন পুলিশ কমিশনার। অভিযুক্ত চার পুলিশকর্মীকে পুলিশ লাইনে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :