চীন-ভারত সীমান্ত ফের উত্তপ্ত

আবারও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে ভারত ও চীনের মধ্যে। চীন পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় (এলএসি) সেনার সংখ্যা বাড়াচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছে ভারত।

শনিবার লেহ্‌তে পৌঁছে এই মন্তব্য করলেন ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল এম এম নরবণে। তিনি বলেন, ‘‘গোড়া এলএসি জুড়েই নতুন করে চীনা ফৌজ মোতায়েন করা হচ্ছে। আমাদের কাছে যা উদ্বেগের বিষয়।’’

লাদাখের পাশাপাশি অরুণাচল প্রদেশের এলএসি-তেও চীনা সেনার সংখ্যাবৃদ্ধি ঘটেছে বলে জানান তিনি। তবে সেই সঙ্গেই তাঁর ঘোষণা, ‘‘যে কোনও পরিস্থিতির মোকাবিলায় ভারতীয় সেনা প্রস্তুত।’’

সূত্রের খবর, পূর্ব লাদাখে সম্ভাব্য চীনা হামলা মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই এম-৭৭৭ এবং কে-৯ বজ্র হাউইৎজার কামান মোতায়েন করা হয়েছে। আমেরিকার বিএই সংস্থার তৈরি ১৫৫ মিলিমিটার (৩৯ ক্যালিবার)-এর এম-৭৭৭ আফগানিস্তানে ন্যাটো বাহিনীর অন্যতম হাতিয়ার ছিল। বিশ্বে এটাই প্রথম ১৫৫ মিলিমিটার কামান, যার ওজন ৪,২১৮ কিলোগ্রামের কম। ফলে হেলিকপ্টারের সাহায্যে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় মোতায়েন করা যায় সহজেই।

মিনিটে পাঁচ রাউন্ড গোলা ছোড়া যায় এম-৭৭৭ কামান থেকে। পাল্লা সর্বোচ্চ ৩০ কিলোমিটার। অন্যদিকে, সাঁজোয়া গাড়িবাহী ১৫৫ মিলিমিটার হাউইৎজার কে-৯ বজ্র দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিগত সহায়তায় বানিয়েছে ভারত।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে চীন এখনো কোনো মন্তব্য করেনি। তবে স্যাটেলইট ইমেজে সীমান্ত এলাকায় ব্যাপক চীনা সেনার উপস্থিতি দেখা গেছে। ফলে পরিস্থিতি আবারও উত্তপ্ত হয়েছে। এর আগে একই এলাকায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩০ জন নিহত হয়েছিল।