আয়াতুল্লাহ খামেনির ভাগনি গ্রেফতার

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির ভাগনি ফারিদা মোরাদখানিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ফারিদাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার ভাই মাহমুদ মোরাদখানি। এক টুইট বার্তায় তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেন। খবর দ্য ডনের


এক ভিডিও বার্তায় ইরান সরকারকে ‘খুনি ও শিশুহত্যাকারী শাসক’ উল্লেখ করে সম্পর্ক ছিন্ন করার আহ্বান জানানোর পর তাকে গ্রেফতার করা হয়।


নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে ইরানে চলা বিক্ষোভে অংশ নেওয়াদের বিরুদ্ধে নিরাপত্তাবাহিনীর ভূমিকার কড়া সমালোচনা করেছেন ফারিদা। তিনি বলেছেন, পুলিশের এমন আচরণের জবাবে তেহরানের সঙ্গে গোটা বিশ্বের সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত।


সম্প্রতি ইউটিউবে শেয়ার করা এক ভিডিওতে ফরিদেহ মোরাদখানি বলেন, ‘হে মুক্ত পৃথিবীর মানুষজন, আমাদের পক্ষে থাকুন এবং আপনাদের দেশের সরকারকে বলুন এই খুনী ও শিশুহত্যাকারী শাসকদের যেন তারা সমর্থন দেওয়া বন্ধ করে। ধর্মীয় নীতি-নৈতিকতার প্রতি তাদের কোনো আনুগত্য নেই এবং ক্ষমতা ধরে রাখা ও বলপ্রয়োগ ব্যতীত তারা আর কিছুই জানে না।’


ফরিদেহ মোরাদখানির বাবা আলি মোরাদখানি আরাঙ্গেহ ছিলেন একজন শিয়াপন্থী মুসলিম নেতা। আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির বোনের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন তিনি। সেই সূত্রে আলি মোরাদখানি আয়াতুল্লাহ আলি খোমেনির ভগ্নিপতি।


এদিকে ইরানে সরকারবিরোধী আন্দোলনে প্রাণঘাতী দমনপীড়নের ঘটনা তদন্ত করতে চেয়েছিল জাতিসংঘ। তবে এ বিষয়ে একটি নবনিযুক্ত স্বাধীন জাতিসংঘের অনুসন্ধান মিশনকে সহযোগিতা করবে না বলে গতকাল সোমবার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।