পুঠিয়ায় রেকর্ড পরিমাণ জমিতে পেঁয়াজ চাষ

বাজারের ব্যাপক চাহিদা ও ভালো মূল্য পাওয়ায় চলতি মৌসুমে রাজশাহীর পুঠিয়ায় রেকর্ড পরিমাণ জমিতে পেঁয়াজ রোপন করেছেন স্থানীয় চাষিরা। অনুকূল আবহাওয়া বিরাজ করলে এ বছর পেঁয়াজে বাম্পার ফলনের আশা করছেন তারা।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকায় প্রায় ৪ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষ হচ্ছে। এর মধ্যে ৮৫০ হেক্টর ডেমনা পেঁয়াজ রয়েছে। অনুকূল আবহাওয়া ও রোগ প্রতিরোধ করতে পারলে প্রায় ৯৫ হাজার মে.টন পেয়াজ উৎপাদন আশা করা যাচ্ছে।

বিগত বছর এই উপজেলায় মোট ৩ হাজার ৪০০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ রোপণ করা হয়। আর উৎপাদন হয় ৬৮ হাজার ৮৫০ মে.টন। গত বছরের তুলনায় এ বছর প্রায় ৮০০ হেক্টর জমিতে বেশী পেঁয়াজ রোপণ হচ্ছে।

উপজেলার পেঁয়াজ ভান্ডার খ্যাত ভালুকগাছি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখাগেছে, গত কয়েক বছর পূর্বেও যে জমিতে জলাবদ্ধতা থাকতো এখন সে জমি গুলোতে পেঁয়াজ চাষ হচ্ছে। অনেকই এই পতিত জমিগুলোতে পেঁয়াজ চাষে সফলতা পেয়েছেন চাষিরা। এরই উদাহরণ দিয়েছেন নাপিত পাড়ার আবেদ আলীর ছেলে ইব্রাহিম হোসেন। তিনি বলেন, এলাকার শত শত হত দরিদ্র কৃষকের ভাগ্যের পরিবর্তন এসেছে কেবলমাত্র পেঁয়াজ চাষে।

অপর চাষি আবুল হোসন বলেন, এ বছর পেঁয়াজের বাজার খুবই ভালো পেয়েছি। বাজারে চাহিদা ও পেঁয়াজের সঠিক মূল্যে পেলে সব সময় চাষিদের আগ্রহ থাকবে। এবার পেঁয়াজের দাম ভালো পাওয়ায় কৃষকদের আগ্রহ অনেক বেড়েছে। যা ফলে এ বছর প্রায় দ্বিগুণ পরিমান জমিতে পেঁয়াজ রোপণ করা হচ্ছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার শামসুনাহার ভূইয়া বলেন, ভালো মূল্যে পাওয়ায় কৃষক বিগত বছরের তুলনায় এ বছর অনেক বেশী পেঁয়াজ রোপণ করছেন। আমরা সার্বক্ষণিক প্রশিক্ষণ, বীজ ও পেঁয়াজ উৎপাদনে পরামর্শ দিচ্ছি। অনুকূল আবহাওয়া বিরাজ করলে এবার পেঁয়াজে বাম্পার ফল হবে বলে আশা করছি।