বশেমুরবিপ্রবির সাবেক উপাচার্যের কর্মকান্ড তদন্ত করছে দুদক

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদত্যাগী সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিনের ঘুষ, দুর্নীতি, ভর্তি বাণিজ্য, নিয়োগ বাণিজ্য এবং বিভিন্ন প্রকার মালামাল ক্রয়ের অনিয়ম তদন্ত শুরু করেছে দুদক।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সকালে দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক শেখ মোঃ ফানাফিল্যা বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে তদন্ত কাজ শুরু করেছেন। আগামীকাল বুধবারও সাবেক উপাচার্যের মেয়াদকালে পরিচালিত কর্মকান্ডের তদন্ত করবেন বলে জানাগেছে।

এদিন সকাল ১০টায় পরিচালক শেখ মোঃ ফানাফিল্যা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে কথা বলেছেন এবং তাদেরকে একটি করে ফরম দিয়েছেন। ওই ফরমে সাবেক উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির কোন তথ্য থাকলে লিখিত ভাবে সেগুলো জানাতে বলেছেন।

এদিকে, গত সোমবার পরিচালক ফানাফিল্যা স্বাক্ষরিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য মোঃ শাহজাহানকে পাঠানো এক ই-মেইল বার্তায় জানান, ১০৫ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প রিভাইজ করে ২৫৬ কোটি হয়েছে। উক্ত প্রকল্পে কি কি কাজ বাস্তবায়িত হয়েছে তার তালিকা ও সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র, ২০১৮-২০১৯ শিক্ষা বর্ষে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি সংক্রান্ত তথ্যাবলী, সাবেক উপাচার্য নাসির উদ্দিন এর সময়কালে নিয়োগ ও আপগ্রেডেশান সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যাবলী, খুলনা শীপ ইয়ার্ড ও নারায়নগঞ্জ ডকইয়ার্ডকে প্রদত্ত কার্যাদেশ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য ও কাগজ পত্রাদী এবং সিএসই বিভাগের শিক্ষক মোঃ আক্কাস আলীর ব্যক্তিগত নথি বিষয়ে তথ্য দিতে বলা হয়।

এদিকে, সাবেক উপাচার্য নাসিরউদ্দিনের সময়কালে বিভিন্ন কাজ সরেজমিনে পরিমাপ গ্রহনে গোপালগঞ্জ গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশলীদের নিয়ে একটি টিম গঠন করা হয়েছে। 

এছাড়া শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ও বন বিভাগের কর্মকর্তাদেরকে তদন্ত কাজে সহযোগিতা করার জন্য উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নানা অনিয়ম, দুর্নীতি, ভর্তি বাণিজ্য, স্বেচ্ছাচারিতা, নারী কেলেঙ্কারীসহ নানা অভিযোগে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিন গত ৩০ সেপ্টেম্বর পদত্যাগ করেন।