বই দেখেই চলছিল পরীক্ষা, হঠাৎ হাজির হলেন ইউএনও!

মানিকগঞ্জে ঘিওরে এসএসসি (ভোকেশনাল) বাংলা প্রথম পত্র পরীক্ষায় নকল করার অপরাধে ৭ শিক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়েছে। একই সাথে নকলে সহায়তা এবং দায়িত্বে অবহেলার দায়ে এক কক্ষ পরিদর্শককে এক বছরের জন্য পরীক্ষার সকল কাযক্রম থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

ঘিওর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আইরিন আক্তার আকম্মিক পরিদর্শনে গিয়ে এই ব্যবস্থা নেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, শনিবার বেলা ১১টার দিকে আকম্মিক কুস্তা কে ডি উচ্চ বিদ্যালয় ও কুস্তা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শনে যান। গাড়ি দূরে রেখে তিনি পায়ে হেঁটে কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। পরীক্ষা কক্ষে ঢুকে দেখেন তিন শিক্ষার্থী বই খুলে লিখছেন। আর ৪ জন লিখছিলেন বইয়ের পাতা ছিড়ে। তাৎক্ষণিক ওই সাত শিক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়। একই সাথে নকলে সহায়তা এবং দায়িত্বে অবহেলার জন্য কক্ষ পরিদর্শক মুরাদ উদ্দিনকে এক বছরের জন্য পরীক্ষার সকল কাযক্রম থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

মুরাদ উদ্দিন ঘিওর ডিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।তার নিজের একটি কোচিং সেন্টার রয়েছে।ভোকেশনালের বেশির ভাগ শিক্ষার্থীই তার কোচিং সেন্টারের শিক্ষার্থী বলে জানাগেছে।

ইউএনও জানান, নকলমুক্ত পরিবেশ গড়তে উপজেলা প্রশাসন বদ্ধপরিকর। এ বিষয়ে যেকোন তদবির/সুপারিশ গ্রহণযোগ্য হবে না। এজন্য তিনি অভিভাবক, শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ সবার সহযোগিতা কামনা করেন।