ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল': রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রশাসনের প্রস্তুতি

কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পগুলোতে ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল' মোকাবিলায় রোহিঙ্গা প্রশাসন সার্বিক প্রস্তুতি নিয়েছে। পাশাপাশি ৩৪টি রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পের বাসিন্দাদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ সামছুদ্দৌজা (উপসচিব) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, রেডক্রস, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও দমকল বাহিনীসহ বিভিন্ন এনজিও সংস্থার কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবীরা দুর্যোগ মোকাবিলায় ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। কক্সবাজারের ৩৪টি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সব মিলিয়ে প্রায় ৩ হাজার ভলেন্টিয়ার প্রস্তুত রয়েছে। পাশাপাশি পাহাড়ে অতি ঝুঁকিপূর্ণদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।

সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় বুলবুল নিয়ে শুক্রবার সকালে ক্যাম্পে আন্তর্জাতিক এনজিও সংস্থাদের নিয়ে বৈঠক হয়েছে। ক্যাম্পের মসজিদে মাইকিং করে সবাইকে সর্তক করা হচ্ছে। পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বাস করা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিরাপদে সরে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে। এতে এনজিওগুলো তাদের সহযোগিতা করছেন।

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, স্থানীয়দের পাশাপাশি রোহিঙ্গা শরণার্থীদেরও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। তাছাড়া সব আশ্রয়কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দুর্যোগ মোকাবিলায় রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পের ভেতরে মসজিদ, স্কুল ও আশপাশের স্থানীয় আশ্রয়কেন্দ্রলোয় অবস্থান নিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া দুর্যোগে অবহেলা না করে ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নেওয়ার জন্য মাইকিংসহ নানাভাবে প্রচার চালানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।