বাল্যবিয়ে বন্ধ করে সাহসীকতার সনদ পেলো ৩ স্কুল ছাত্রী

নাটোরের গুরদাসপুরে নিজের বাল্যবিয়ে নিজেরাই বন্ধ করায় তিন শিক্ষার্থীকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে সাহসীকতার সনদ। 

বুধবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলা সদরের চাঁচকৈড় মধ্যমপাড়া শাহিদা কাশেম পৌর উচ্চ বিদ্যালয়ের তিন জন শিক্ষার্থীর হাতে সাহসীকতার সনদ ও বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনি বই তুলে দেন ইউএনও তমাল হোসেন। 

নিজেদের বাল্যবিয়ে নিজেরাই বন্ধ করে সাহসীকতার পুরষ্কার পাওয়া তিন জন শিক্ষার্থী ওই বিদ্যালয়ের শাহানুর(৬ষ্ঠ শ্রেনী),রহিমা(৭ম শ্রেণী) ও সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী কামরুন্নাহার। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ হাফিজুর রহমান, শাহিদা কাশেম পৌর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিগার সুলতানাসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। 

ইউএনও তমাল হোসেন জানান, গত সোমবার বিকেলে শাহিদা কাশেম পৌর উচ্চ বিদ্যালয়ের তিন জন শিক্ষার্থী আমাকে ফোন করে তাদের পরিবার থেকে মঙ্গলবার বিয়ে দিবে সেই কথা জানায় এবং বিয়ে বন্ধ করার জন্যে বলে। 

কারণ তারা পড়াশোনা করতে চায়। পরে মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে তিন শিক্ষার্থীর পরিবারের অভিভাবকদের কাছ থেকে ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না মর্মে মুচলেকা নেওয়া হয়। 

আজ বুধবার দুপুরে ওই বিদ্যালয়ে গিয়ে তিন শিক্ষার্থীকে নিজেদের বিয়ে নিজেরা বন্ধ করায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে সাহসীকতার পুরষ্কার ও বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনি বই।