ফুলবাড়ীতে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী-সন্তানকে মারধর করল মিটার রিডার

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে নর্দান ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই (নেসকো) এর মাষ্টার রোলের মিটার রিডার এ এম শাহেদ ইসলাম কর্তৃক এক মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী কন্যাকে মারপিট করার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে পৌর এলাকার উত্তর সুজাপুর গ্রামে এই হামলা ও মারপিটের ঘটনা ঘটে।

হামলা ও মারপিটের ঘটনায় আহত মুক্তিযোদ্ধা মৃত মতিয়ার রহমানের স্ত্রী মমেনা বেওয়া (৫৮) ও কন্যা জোরাইয়া বেগমকে (২৭) ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এই ঘটনায় মাষ্টার রোলের মিটার রিডার এএম শাহেদ ইসলামকে, তার মাষ্টার রোলের চাকুরি থেকে তৎক্ষনাৎ বরখাস্ত করেছে নেসকোর ফুলবাড়ী বিদুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের আবাসীক প্রকৌশলী উজ্জল আলী।

বরখাস্ত হওয়া মিটার রিডার এএম শাহেদ পৌর এলাকার পশ্চিম গৌরীপাড়া গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। সে নেসকোর ফুলবাড়ী বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্রে মাষ্টার রোলে মিটার রিডার পদে কর্মরত ছিল।

মুক্তিযোদ্ধা মতিয়ার রহমানের স্ত্রী মমেনা বেগম বলেন, মিটার রিডার এএম শাহেদ ইসলাম মিটার পরিদর্শন না করে, ঘরে বসে ইচ্ছামত বিদুৎ বিল তৈরী করেন। এই ঘটনাটির প্রতিবাদ করায় মিটার রিডার এএম শাহেদ ইসলাম তার মেয়ে জোরাইয়া বেগমকে গালিগালাজ করে। এই সময় তিনি গালিগালাজ করার কারণ জিজ্ঞাসা করতে এলে তাকেও ধাক্কা মারে ও মেয়েকে কিল ঘুষি মেরে আহত করে।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে নেসকোর আবাসিক প্রকৌশলী উজ্জল আলী বলেন, ওই মিটার রিডার এএম শাহেদ ইসলাম মাষ্টার রোলে কর্মরত ছিল। অফিসকে অবহিত না করে সেখানে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সাথে একটি অপ্রীতিকর ও দুঃখজনক ঘটনা ঘটিয়েছে। এই ঘটনার সাথে নেসকোর কোন সম্পর্ক নেই।

তিনি বলেন, ঘটনা জানার সাথে সাথে শাহেদকে বরখাস্ত করা হয়েছে।