গোপালগঞ্জে ভ্রাম্যামাণ আদালতের অভিযানে ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা

গোপালগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে অতিথি পাখি শিকার, সরকারি খাল ভরাট এবং মেয়াদ উর্ত্তীর্ণ ওষুধ রাখা ও মূল্য তালিকা না থাকার অপরাধে ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে।

সোমবার কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির আহম্মেদ এবং কোটালীপাড়া উপজেলার ভাঙ্গার হাট বাজারে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, গোপালগঞ্জের সহকারী পরিচালক শামীম হাসান পৃথকভাবে এ অভিযান পরিচালনা করেন।

কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির আহম্মেদ জানান, কাশিয়ানী উপজেলার রাতইল বিলে অতিথি পাখি শিকার করছিলেন তিন যুবক। পরে খবর পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে ৯টি অতিথি পাখিসহ ওই তিন যুবককে আটক করে জরিমানা করে।

অতিথি পাখি শিকারের দায়ে বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাট উপজেলার জসিম উদ্দিনকে ২০ হাজার, একই উপজেলার তাপস বিশ্বাস ও গোপালগঞ্জ শহরের মিয়াপাড়ার কবিরুলকে ৩০ হাজার করে মোট ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। উদ্ধারকৃত ৯টি পাখির মধ্যে জীবিত দুইটি পাখিকে অবমুক্ত করা হয় ও পাখি শিকারে ব্যবহৃত বন্দুক ও ৮টি তাজা কার্তুজ জব্দ করা হয়।

অপরদিকে, ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের পাশে সরকারী খাল বালু দিয়ে ভরাট করার দায়ে ইমন (২০) নামে এক যুবককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু, টাকা দিতে না পারায় অভিযুক্তকে কাশিয়ানী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

অন্যদিকে, গোপালগঞ্জ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শামীম হাসান জানান, সোমবার দুপুরে কোটালীপাড়া উপজেলার ভাঙ্গারহাট বাজারে অভিযান চালানো হয়। এ সময় মেসার্স বিষ্ণু চরণ ফার্মেসী থেকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ৩৬ বক্স বিভিন্ন ধরনের ওষুধ রাখার দায়ে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া, একই বাজারে মাছের খাদ্য মোড়কের গায়ে লেখা খুচরা মূল্য থেকে বেশি দামে বিক্রি করার দায়ে মেসার্স মহিদুল ট্রেডার্সকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।