গুরুদাসপুরে ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধের নির্দেশ প্রশাসনের

করোনা থেকে বাঁচতে দোকানপাট, ব্যবসা অনেকাংশে বন্ধ করতে হচ্ছে। এতে দিনমজুররা শ্রম বিক্রি করতে পারছেন না। ফলে ঋণগ্রস্থ দরিদ্ররা কিস্তি পরিশোধে হিমসিম খাচ্ছেন। তাই বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় গুরুদাসপুরের সকল এনজিওকে অনিদিষ্ট সময় পর্যন্ত ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রশাসন।

রবিবার (২২ মার্চ) জেলা প্রশাসন এ নির্দেশ দিয়েছেন।

জানা যায়, গুরুদাসপুরে আশা, ব্র্যাক, গ্রামীণ, আভা, ব্যুড় বাংলাদেশসহ প্রায় ২৬টি এনজিও ঋণ কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন এনজিও সংস্থারা। এসব এনজিও থকে প্রায় ৪৫ হাজার মানুষ বিভিন্ন মেয়াদে ঋণ সুবিধা নিয়েছেন। সপ্তাহের ছুটির দিন ব্যতিত প্রতিদিনই এনজিও কর্মীরা কিস্তি আদায় করছিলেন। কিন্তু নিম্ন আয়ের মানুষের কাজ বন্ধ হওয়ায় তারা কিস্তি দিতে পারছিলেন না। তাই তাদের সুবিধার্থে জেলা প্রশাসন এ নির্দেশ দিয়েছেন। 

গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন জানান, যারা এনজিও থেকে ঋণ নিয়েছিলেন তাদের কিস্তি দিতে অসুবিধা হচ্ছিল। বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় করোনা পরিস্থিতি শিথিল না হওয়া পর্যন্ত এনজিওগুলোকে কিস্তি আদায় না করতে নিদের্শ দিয়েছেন।