ডোমারে করোনা উপসর্গে বৃদ্ধের মৃত্যু, দাফনে পুলিশ, বাড়ি লকডাউন

নীলফামারীর ডোমারে করোনা উপসর্গ জ্বর, সর্দি ও কাশিতে আক্রান্ত হয়ে ৬৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। করোনা আক্রান্ত সন্দেহে মৃত্যু ব্যক্তির শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহের পর পুলিশের সহযোগিতায় বৃদ্ধের দাফন কাজ সম্পন্ন হয়। পরে বৃদ্ধের বাড়িটি লকডাউন করে দেয় প্রশাসন।

বুধবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলার কেতকিবাড়ী ইউনিয়নের দক্ষিন কেতকিবাড়ী খালপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে বৃদ্ধ শ্বাসকষ্ট, এ্যাজমা রোগে ভুগছিলেন। কিছুদিন আগে তার হার্টের সমস্যা ধরা পরে। কয়েকদিন থেকে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় মঙ্গলবার গভীর রাতে বাড়িতেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন। 
বুধবার সকালে তার মৃত্যুর সংবাদে এলাকায় করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয়রা তাদের বাসায় ভয়ে আসেনি। পরে পুলিশের সহায়তায় মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন হয়।

এর আগে মৃত ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন কিনা সেটা পরীক্ষার জন্য তার দেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

এছাড়াও মৃত ব্যক্তির বাড়ির ৫০০ গজের মধ্যে আর কোন বসত ভিটা না থাকায় তার বাড়িটি লকডাউন করা হয়েছে।

ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোস্তাফিজার রহমান জানান, খবর পেয়ে তার নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃত ব্যক্তির দুই ছেলে ও নাতির সহযোগিতায় এবং পুলিশের সাত সদস্য মিলে দাফন ও জানাযার কাজ সম্পন্ন করা হয়। মৃত ব্যক্তির নাতি জানাযার ইমামতি করেন। 

তিনি আরও বলেন, করোনা আতঙ্কে এলাকাবাসীরা ভয়ে ঐ বাড়িতে প্রবেশ করেনি এবং দাফন কাজে অংশ নেয়নি। মৃত ব্যক্তির বাড়িটি লকডাউনের পাশাপাশি তার পরিবারের সাত সদস্যকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। 

মানবিক এই কাজে ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোস্তাফিজার রহমানের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা।