ঠাকুরগাঁওয়ে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

ঠাকুরগাঁওয়ে ক্লাসিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চিকিৎসকের অবহেলায় ফজিলা বেগম নামে এক নারীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর ক্লাসিক ডায়াগনস্টিক সেন্টারের স্বতাধিকারী ডাঃ জাহাঙ্গীর আলম ও তার লোকজন ক্লিনিকে তালা দিয়ে পালিয়ে যান বলে জানায় স্থানীয়রা।

আজ সোমবার (২৭ এপ্রিল) বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই নারীর মৃত্যু হয়।

পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, গত শুক্রবার শারীরিক সমস্যা নিয়ে সদর উপজেলার ফারাবাড়ি এলাকার দুলাল হোসেনের স্ত্রী ফজিলা বেগম ডাঃ জাহাঙ্গীরের পরামর্শ নিয়ে বাসায় ফিরে যান। পরে আজ সকালে আবারো অসুস্থবোধ করলে পরিবারের সদস্যরা ফজিলা বেগমকে নিয়ে ওই চিকিৎসকের কাছে আসেন। এসময় চিকিৎসক জাহাঙ্গীর রোগীর পরিবারকে দোকান থেকে ইনজেকশন আনতে বলেন। পরে ইনজেকশনটি শরীরে পুশ করলে মারা যায় ফজিলা। এ অবস্থায় চিকিৎসক কৌশলে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সদস্যদের দিয়ে রোগীকে সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এসময় রোগীর স্বজনরা হাসপাতাল চত্বরে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। সেই সাথে ডাঃ জাহাঙ্গীর আলমের উপযুক্ত বিচার দাবি করেন।

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তওসীফ বিন মামুন জানান, হাসাপাতালে নিয়ে আসার আগেই রোগী মারা গিয়েছে। তখন আমাদের কিছু করার ছিল না। তার চিকিৎসায় ঘটতি ছিল বলেই হয়তো মারা যান তিনি।

এ বিষয়ে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের স্বতাধিকারী ডাঃ জাহাঙ্গীর আলমের সাথে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেন নি।

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম জানান, আমরা জানতে পেরেছি একজন চিকিৎসকের অবহেলায় ফজিলা বেগম নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এ বিষয়ে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি।