বোয়ালখালীতে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে যাকাতের টাকা বিতরণ নিয়ে পূর্ব বিরোধে জড়িয়ে মো. নাছির উদ্দিন (৩৫) নামে এক যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা করেছে অন্য এক যুবলীগ নেতা। এছাড়াও গুলিবিদ্ধ হয়েছেন নিহতের মুক্তিযোদ্ধা বাবা ও ভাই।

শুক্রবার (১৫ মে) রাতে জেলার বোয়ালখালী উপজেলার চরণদ্বীপ ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিজ এলাকায় যাকাতের টাকা বিতরণ নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান শামসুল আলমের সমর্থক মুক্তিযোদ্ধা আলী মদনের ছেলে যুবলীগ নেতা লোকমান ও যুবলীগ নেতা মাহবুবুল আলমের সমর্থক হাছি মিয়ার ছেলে জসিমের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে সেই বিরোধ পুরনো রাজনৈতিক বিরোধে রূপ নিয়ে হাতাহাতিতে গড়ায়। খবর পেয়ে জসিমের ভাই শওকত বাড়ি থেকে বন্দুক নিয়ে এসে লোকমানের ওপর হামলা চালায়। এসময় লোকমানকে বাঁচাতে বড় ভাই নাছির ও পিতা মুক্তিযোদ্ধা আলী মদন এগিয়ে আসলে শওকত এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে।

এতে লোকমান, তার ভাই নাছির ও বাবা মুক্তিযোদ্ধা আলি মদন গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাদের চমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নাছিরকে মৃত ঘোষণা করে। বাকি দু’জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

হামলায় নিহত ও হামলাকারীদের সবাই যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। কিছুদিন আগেও তারা একসঙ্গে রাজনীতি করলেও বর্তমানে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে চলছে চরম বিরোধ।

বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল করিম বলেন, স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মাহবুবুল আলমের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় প্রতিপক্ষের হামলায় নাছির নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও দুইজন। এ ঘটনায় জসিম ও শওকতকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে দুটি পিস্তল, একটি এলজি, ৫ রাউন্ড গুলি, ২টি কার্তুজ, ছুরি, চাপাতি এবং দা উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। আবারো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কায় আতঙ্কিত স্থানীয়রা।