সাদুল্লাপুরে স্বামীকে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার স্ত্রী

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলায় আবুল কালাম (৭০) নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্ত্রী শিউলি বেগমের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় শিউলিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৬ মে) রাতে পুলিশ উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের জামুডাঙ্গা (বাঁধের মাথা) গ্রামে কালামের বাড়ি থেকে মরহেদ উদ্ধার করে এবং সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুদ রানা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আবুল কালামের দ্বিতীয় স্ত্রী শিউলি বেগম। পারিবারিক কলহ ও তুচ্ছ ঘটনায় ঈদের দুই দিন আগে কালামকে লাঠি দিয়ে পেটায় শিউলি। এতে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় মঙ্গলবার সকালে বাড়িতেই মারা যান কালাম। তিনি সাদুল্লাপুর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের ওয়াক্ত নামাজের মুয়াজ্জিন ছিলেন।

স্বজন ও প্রতিবেশীদের অভিযোগ, লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধরে কালামের হাত-পা ও শরীরে জখম হয়। কিন্তু চিকিৎসা না করে তাকে বাড়িতে আটকে রাখা হয়। ঈদের দিন ও পরের দিনেও তার সঙ্গে কাউকে দেখা করতে দেওয়া হয়নি। এমন কী কালামের মৃত্যুর ঘটনাটি গোপন রেখে বিকালে জানায় শিউলি। স্ত্রীর অত্যাচার ও মারধরেই কালামের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি তাদের। ঘটনার সঙ্গে শিউলি তার মা ও বোন জড়িত বলেও তাদের অভিযোগ।

নিহতের ছেলে মমিনুল ইসলাম বলেন, ‘সৎ মা দীর্ঘদিন ধরে বাবাকে মারধর ও নির্যাতন করতেন। পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যার পরেও তা গোপনের চেষ্টা করেন তিনি। এই ঘটনায় সৎ মা ও জড়িতদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

এ ব্যাপারে ওসি মো. মাসুদ রানা জানান, নিহতের হাত-পা ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অভিযুক্ত শিউলিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবার হত্যার অভিযোগে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।