টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মোহাম্মদ শরীফ (২৬) নামের এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হয়েছেন।

রবিবার (৭ জুন) ভোর ৪টার দিকে টেকনাফ উপজেলার নয়াপাড়ার জাদিমোরা শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পার্শ্ববর্তী পাহাড়ে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

পুলিশের দাবি, নিহত মোহাম্মদ শরীফ টেকনাফ নয়াপাড়া রেজি. ক্যাম্পের শীর্ষ সন্ত্রাসী ডাকাত জকির গ্রুপের সদস্য ও শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মো. সালামের ছেলে।

টেকনাফ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, রবিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ মডেল থানার পুলিশের একটি দল টেকনাফ উপজেলা হ্নীলা ইউনিয়নের ক্যাম্প ২৬’ শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ব্লক ডি-৩ ও ব্লক ডি-৪ এর মাঝে পাহাড়ের পাদদেশে অস্ত্রশস্ত্রসহ অবস্থানরত রোহিঙ্গা ডাকাত জকির গ্রুপের সদস্যদের কেন্দ্রস্থলে অভিযানে গেলে সশস্ত্র রোহিঙ্গা ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ করে।

তার ভাষ্য, পুলিশও নিজেদের আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি বর্ষণ করলে রোহিঙ্গা ডাকাতরা পালিয়ে যায়। একপর্যায়ে গুলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থলে একজনকে গুলিবিদ্ধ পাওয়া যায়।

ঘটনাস্থল থেকে দুটি দেশীয় তৈরি (এলজি) আগ্নেয়াস্ত্র,৭ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ৮ রাউন্ড তাজা কার্তুজের খোসা উদ্ধার করা হয়।

ওসির দাবি, এ ঘটনায় আহত হন পুলিশের দুই সদস্য এএসআই  আজিজ ও আমির হোসেন। পরে আহত পুলিশের দুই সদস্য ও উদ্ধারকৃত গুলিবিদ্ধ সন্ত্রাসীকে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

সেখানে আহত পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিয়ে গুলিবিদ্ধ সন্ত্রাসীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি জানান, মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা ও প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।