আমতলীতে ব্রিজ ভেঙে ইট বোঝাই ট্রলি নদীতে, আহত ২

বরগুনার আমতলী উপজেলার আমড়াগাছিয়া ব্রিজ ভেঙে ইট বোঝাই ট্রলি নদীতে পড়ে গেছে। এতে ওই ট্রলির চালক রাসেল ও হেল্পার ইয়াসিন আহত হয়। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছে। 

বুধবার (১০ জুন) সকালে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা যায়, ২০০৬ সালে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ আমড়াগাছিয়া নদীতে আমড়াগাছিয়া বাজারের সংলগ্ন স্থানে আয়রন ব্রিজ নির্মাণ করে। নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে নির্মাণ করায় ব্রিজটি নড়বড়ে ছিল। নির্মাণের ১০ বছরের মাথায় ২০১৬ সালে ব্রিজটির মাঝখানের অংশ ভেঙে পড়ে। ব্রিজটি ভেঙে পড়ায় কুকুয়া এবং গুলিশাখালী ইউনিয়নের মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিছিন্ন হয়ে যায়। তাৎক্ষণিক ওই ব্রিজের ভাঙা অংশ স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ মেরামত করে। মেরামত করার পরে ওই ব্রিজ দিয়ে বড় যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করে দেয় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ। কিন্তু প্রকৌশল বিভাগের নিষেধ উপক্ষো করে ট্রাক ও ট্রলির মালিকরা ওই ব্রিজ দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে থাকে। এতে দিন দিন ব্রিজ নড়বড়ে হয়ে পড়ে। 
বুধবার সকালে ইট বোঝাই ট্রলি আমড়াগাছিয়া থেকে গুলিশাখালী গুচ্ছগ্রামে যাচ্ছিল। আমড়াগাছিয়া ব্রিজটি পাড় হওয়ার সময় ব্রিজটির মাঝখানের অংশ ভেঙে ট্রলিটি নদীতে পড়ে যায়। এতে ওই ট্রলিতে থাকা চালক রাসেল ও হেল্পার ইয়াসিন আহত হয়। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন। কিন্তু ট্রলিটি নদীতে তলিয়ে গেছে। সর্বশেষ খবরে ট্রলিটি এখনও উদ্ধার করতে পারেনি। ট্রলি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। 

মেরামতের চার বছরের মাথায় ব্রিজটি পুনরায় ভেঙে পড়ায় দুইটি ইউনিয়নের অন্তত ত্রিশ হাজার মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। দ্রুত ওই স্থানে গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। 

এদিকে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, ধারণ ক্ষমতার চেয়ে কয়েকগুন বোঝাই ভারি যানবাহন চলাচল করায় এ ব্রিজ ভেঙে পড়েছে।

আমড়াগাছিয়া বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, 'আমড়াগাছিয়া নদীর এ ব্রিজ দিয়ে কয়েক হাজার মানুষ যাতায়াত করত। ব্রিজটি ভেঙে পড়ায় দুই ইউনিয়নের প্রায় ত্রিশ হাজার লোকের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। গত চার বছর আগে এই ব্রিজটি ভেঙে পড়েছিল। ওই একই স্থান দিয়ে আবার ভেঙে পড়েছে। দ্রুত ওইখানে গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানাই।'

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী মো. আল মামুন বলেন, ধারণ ক্ষতার চেয়ে ভারি যানবাহন চলাচল করায় ব্রিজ ভেঙে পড়েছে। ট্রলির মালিককে ব্রিজ মেরামত করে দিতে হবে। 

তিনি আরও বলেন, ওইখানে গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের প্রস্তাব স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ে পাঠানো আছে। অনুমোদন হলে গার্ডার ব্রিজ নির্মাণ করা হবে।

এ ব্যাপারে আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন বলেন, ভাঙা ব্রিজ এলাকা পরিদর্শন করে মানুষের যাতে দুর্ভোগ পোহাতে না হয় সেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।