ঘুষ দাবি, হাতীবান্ধায় ইউপি সচিব অবরুদ্ধ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নে জন্ম নিবন্ধন কার্ডের অতিরিক্ত টাকা চাওয়ায় ইউপি সচিব ওবায়দুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করেছে এলাকাবাসী। পরে ইউপি চেয়ারম্যান অতিয়ার রহমান আতি সচিবের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিলে বিক্ষুব্ধরা চলে যায়।

বুধবার (৯ জুন) দুপুরে ৪নং টংভাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানাগেছে, টংভাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদে সচিব ওবায়দুল ইসলাম দীর্ঘ দিন ধরে সরকারি ফি উপেক্ষা করে মানুষের নিকট থেকে অতিরিক্ত টাকা উৎকোচ গ্রহণ করে আসছিল। এমন অবস্থায় বুধবার ইউপি সচিব ওবায়দুল ইসলাম জন্ম নিবন্ধনের জন্য অতিরিক্ত টাকা দাবি করে। এতে ভুক্তভোগীরা ক্ষুব্ধ হয়ে বাকবিতন্ডা শুরু করেন। এর এক পর্যায়ে স্থানীয় লোকজন ও ভুক্তভোগীরা ঐ সচিবকে অবরুদ্ধ করে রাখেন।

ভুক্তভোগী মতিয়ার রহমান বলেন, ইউপি সচিব ওবায়দুল ইসলামের নিকট জন্ম নিবন্ধন করার জন্য গেলে সরকারি ফি এর চেয়ে অতিরিক্ত টাকা উৎকোচ দাবি করেন। তাই তার শাস্তির দাবিতে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

একই কথা বলে ভুক্তভোগী রুবি জানান, এই ইউপি সচিব ঘুষ ছাড়া কোন কাজ করে না। আমরা এই সচিবের শাস্তি চাই।

এ বিষয়ে টংভাঙ্গা ইউপি সচিব ওবায়দুল ইসলামের মুঠোফোনে একাধিক বার ফোন দিলে তিনি ফোন ধরেননি।

টংভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান আতিয়ার রহমান আতি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অতিরিক্ত ফি দাবি করায় এলাকাবাসী সচিবকে অবরুদ্ধ করে। পরে খবর পেয়ে সচিবকে উদ্ধার করেছি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল আমিন বলেন, বিষয়টি শুনেছি। তবে সচিবের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।