কুষ্টিয়ায় করোনায় আরও ১৮ জনের মৃত্যু, টিকা কেন্দ্রে বিশাল লাইন

কুষ্টিয়ায় করোনা টিকা দেয়া শুরু হয়েছে। কেন্দ্রে উপচে পড়া ভীড়ে মানুষের চাপের কারণে টিকা কেন্দ্র পরিবর্তন করা হয়েছে। আর একদিনে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৮ জন মারা যায়। এর মধ্যে ১৩ জন করোনা পজিটিভ ও ৫ জন উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে বলে নিশ্চিত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এর আগের দিন করোনা ও উপসর্গ নিয়ে মারা যায় ২১ জন।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার তাপস কুমার সরকার বলেন, রোগীর চাপ প্রতিদিন বাড়ছে। সুস্থতার চেয়ে ভর্তি হচ্ছে তার চেয়ে দুই থেকে তিনগুন। যারা আসছে তাদের বেশির ভাগেরই অবস্থা খারাপ। এ কারণে মৃত্যু কমছে না। এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় ৮৯২ টি নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছে ২৪৫ জন। শনাক্তের হার ২৭.৪৬ শতাংশ। হাসপাতালে নতুন করে ভর্তি হয়েছে ৩৬ জন। সব মিলিয়ে ২০০ শয্যার বিপরিতে রোগী ভর্তি আছে ২৬৬ জন। একদিনে সুস্থ হয়েছে ১৫১জন। আক্রান্তের হার সদর উপজেলায় সব থেকে বেশি। আর কম আক্রান্ত কম খোকসা উপজেলায়। মৃত্যুও বেশি সদর উপজেলায়। অদ্যবদি মারা গেছে ৩৪৬ জন।

এদিকে করোনার টিকা কেন্দ্রে ব্যাপক ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। মানুষের চাপের কারণে টিকা কেন্দ্র পরিবর্তন করা হয়েছে। আগে হাসপাতাল সংলগ্ন আরপিটিআই কার্যালয়ে দেওয়া হলে কেন্দ্র পাশেই কলকাকলি স্কুল মাঠে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। সেখানে টিকা নিতে শত শত মানুষ লাইন ধরেছে। সড়ক পর্যন্ত চলে এসেছে লাইন। বিশেষ করে পুরুষের চেয়ে নারীরা টিকা নিতে বেশি ভিড় করেছে। এতে বেগ পেতে হচ্ছে স্বাস্থ্য কর্মীদের। বিশৃঙ্খলা ও হট্টগোল এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কয়েকজন জানান, একটি কেন্দ্রে টিকা না দিয়ে শহরের প্রতিটি ওয়ার্ডে দিলে ভীড় কম হবে। এতে মানুষ সহজেই টিকা নিতে পারবে। হয়রানি ও কষ্টও কমবে সেই সাথে।