বগুড়ায় বোনের আপত্তিকর ছবি ভাইরাল, প্রাণ গেল ভাইয়ের

বগুড়ায় সালিশী বৈঠকের জরিমানার টাকাকে কেন্দ্র করে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম হওয়া হাসান সরকার (৫০) নামে এক ব্যক্তি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে।

শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়েছে। গত ববৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে হাসান সরকারকে কুপিয়ে জখম করে রুপম। নিহত হাসান সরকার বগুড়া পৌর এলাকার পালশা সরকার পাড়ার মৃত সামছুল সরকারের পুত্র।

জানা যায়, হাসানের স্বামী পরিত্যাক্তা বোন একটি মোবাইল ফোন কোম্পানির শো-রুমে কর্মরত অবস্থায় স্থানীয় এক যুবকের সাথে পরকীয়া সম্পর্ক জড়িয়ে পড়ে, এবং তারা কিছু আপত্তিকর কিছু ছবি উঠায়। সেই ছবিগুলো একই এলাকার রুপম নামে এক যুবক হাতে পায়। পরে সেই ছবিগুলো বিভিন্ন মোবাইল ফোনে পাঠিয়ে দেয়। এতে করে তার বোনের চাকরি চলে যায়। পরে বিষয়টি হাসান সরকার স্থানীয় পৌর কাউন্সিলরের কাছে নালিশ করে।

কয়েকদিন আগে পৌর কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম এলাকায় সালিশ বসিয়ে রুপমকে দোষী সাব্যস্ত করে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে। সালিশ মেনে নিয়ে টাকা পরে দেওয়ার কথা জানায় রুপম এবং সেই টাকা নির্ধারিত সময়ে না দেওয়ায় গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টায় ভবের বাজার এলাকায় হাসান সরকারের তর্কবিতর্ক হয়। এসময় রুপম ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথায় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে পরদিন তাকে ঢাকা মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে নেয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়।

বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেলিম রেজা বলেন, হাসানের মাথায় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখমের পর থেকেই রুপম পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।