বগুড়ার এসআর কেমিক্যালের বিষাক্ত ধোঁয়ায় শ্রমিকের মৃত্যু

বগুড়ার শেরপুরে এসআর কেমিক্যাল কারখানার বিষাক্ত ধোঁয়ায় আয়েশা আক্তার (৪৫) নামের এক নারী শ্রমিক নিহত ও তিনজন আহত হয়েছেন।

বুধবার বিকেলে উপজেলার রাজাপুর গ্রামে বিএনপি দলীয় সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের মালিকাধীন কারখানায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহত আয়েশা আক্তার উপজেলার ররোয়া গ্রামের মোঃ সোলায়মান আলীর স্ত্রী। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা চলছে।

জানাগেছে, এসআর কেমিক্যাল কারখানার পরিবেশ অধিদপ্তরের নেই কোনো অনুমতি। জনসাধারণের প্রশ্ন একজন সংসদ সদস্য সে জনগনের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হয়ে, যদি অবৈধ ও অপরাধমূলক কাজ করে তাহলে জনসাধারণ বিপদে আপদে কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে। তাই সচেতন মহলের দাবি সরকারের উচ্চমহল বিষয়টি দেখবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আয়েশা আক্তার ওই কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের রান্নার কাজ করতেন। প্রতিদিনের ন্যায় ঘটনার দিন সকালে কাজে যোগ দিতে কারখানাটিতে যান। বিকেলে কারখানার শ্রমিকদের জন্য রাতের খাবার রান্না করছিলেন তিনি। এসময় হঠাৎ রান্নাঘরের পাশের একটি ঘর থেকে প্রচুর বিষাক্ত ধোঁয়া বের হতে থাকে। সেইসঙ্গে রান্নাঘরের ভেতরেও ঢুকে পড়ে এসব বিষাক্ত ধোঁয়া।

রান্নার কাজে থাকা আয়েশা আক্তারের দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হলে চিৎকার দিতে থাকেন। এসময় কারখানার তিন শ্রমিক তাকে উদ্ধারে এগিয়ে আসে এরপর তারাও অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদেরকে দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গেপাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আয়েশা আক্তারকে মৃত ঘোষণা করেন এবং আহত  শ্রমিকদের উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এরপর তাদেরকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। তবে কারখানা কর্তৃপক্ষ ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টায় লিপ্ত থাকায় আহতদের নাম-পরিচয় জানাতে অস্বীকার করেন। তাই তাদের নাম পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ জানা সম্ভব হবে। সে মোতাবেক আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। উক্ত ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু দায়ের হয়েছে।