হাসপাতালের বারান্দায় ৬ ঘন্টা পড়েছিল অজ্ঞাত নারীর লাশ

কুষ্টিয়ায় হাসপাতালের বারান্দায় ছয় ঘন্টা পড়েছিল একটি লাশ। যা দেখার কেউ ছিল না। নোংরা কম্বলে ঢাকা, মাছি ভনভন করা লাশের পাশ দিয়ে যাওয়া লোকজন নাক–মুখে কাপড় চেপে ধরে চলেছেন। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত লাশটি এভাবেই হাসপাতালে। দাফন বা সৎকারের উদ্যোগ নেই।


শুক্রবার (৩ নভেম্বর) কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বারান্দায় এমন দৃশ্যের অবতারনা ঘটে।


খাদিমুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি জানান, অজ্ঞাত ওই নারী বেশ কয়েক দিন ধরে ছেঁউড়িয়া লালন শাহ আখড়াবাড়ির সামনে ছিলেন। আখড়াবাড়ির প্রধান ফটকের পাশেই গতকাল তিনি অসুস্থ অবস্থায় পড়েছিলেন। ৯৯৯–এ কল করলে পুলিশ যায়। সে সময় তিনি পুলিশের সহায়তায় ওই নারীকে ভ্যানে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান, এর বেশি কিছু তিনি আর জানেন না।


এদিকে সকালে মারা যাওয়ার পর পাঁচ ঘণ্টার বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও লাশের দাফন বা সৎকারের কোনো ব্যবস্থা হয়নি। এতে লাশের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। লাশ পড়ে থাকায় আশপাশের রোগীর স্বজনেরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। 


বিকেল পৌনে পাঁচটায় হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার শরিফুল ইসলাম বলেন, আমি কিছুক্ষণ আগে মুঠোফোনে বিষয়টি জানতে পারি। পরে লাশটি মর্গে রাখা হয়।