পাঁচ আসামি গ্রেপ্তারের পর যা বললেন পরীমণি

 ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে উত্তরা ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদ, অমিসহ ছয়জনকে আসামি করে সাভার মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন পরীমনি। দুপুরের মধ্যে প্রধান আসামিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বাংলাদেশে চলচ্চিত্রের প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী পরীমনি তাকে 'ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার' অভিযোগে সাভার থানায় মামলা করা হয়। নাসির উদ্দিন নামে এই ব্যবসায়ীকে তার উত্তরার বাসা থেকে আটক করা হয়েছে বলে জানান গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার হারুন-অর-রশীদ। বাকিদেরও একই স্থান থেকে আটক করা হয়।

এসময় নাসির উদ্দিনের বাসা থেকে মাদক উদ্ধারও করা হয় বলে জানাচ্ছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতদের সবাইকে ঢাকার মিন্টোরোডে গোয়েন্দা বিভাগের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ঘটনায় স্বস্তি প্রকাশ করে পরীমনি বলেন, এত দ্রুতই প্রধান আসামি গ্রেপ্তার হওয়ায় এখন ভরসা পাচ্ছি। নিশ্চিন্ত হলাম। বাঁচতে পারব। বাকি অভিযুক্ত ব্যক্তিদেরও দ্রুত আইনের আওতায় আনা হোক।

মামলায় পরীমনি ছয়জনের বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনেছেন বলে জানা যাচ্ছে।

এদের দুইজনকে নামে এবং বাকি চারজনকে অজ্ঞাতনামা বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

গতরাতে ফেসবুক স্ট্যাটাস ও সংবাদ সম্মেলন করে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগের কথা জানানোর পর রূপনগর থানা থেকে পুলিশের কর্মকর্তারা তার বাসায় গিয়েছিলেন অভিযোগ রেকর্ড করার জন্য। পরে মামলাটি করা হয় সাভার থানায়।