পরীমনির বাসায় নারী র‌্যাব সদস্যরা

চিত্রনায়িকা পরীমনির বনানীর বাসায় র‌্যাবের অভিযান চলছে। বিকাল ৪টার দিকে এই অভিযান শুরু হয়। এর ৩০ মিনিট পর পরীর বাসায় একে একে তিন থেকে চারজন র‍্যাবের নারী সদস্যকে প্রবেশ করতে দেখা যায়।

এরপরই পরীমনিকে আটক করা হতে পারে বা হয়েছে এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে। তাকে আটক করার জন্যই র‍্যাবের নারী সদস্যরা বাসার ভেতরে গিয়েছেন বলে মনে করছেন উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীরা।

তবে এ বিষয়ে এখনো সুনির্দিষ্ট কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি র‍্যাবের পক্ষ থেকে।

অভিযানের আগে যখন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তার বাসা ঘিরে রাখে, তখনই তিনি ফেসবুকে লাইভে আসেন। তিনি বলেন, ‘আমি ঘুমাইতেছিলাম। বাসার নিচে মেইনগেটে সব ভাঙচুর করে তারা ওপরে চলে আসছে। এখন বাসার গেট ভাঙচুরের চেষ্টা করছে। বারবার কলিং বেল বাজাচ্ছে। পুলিশসহ কেউ শুনছে না, আমি সবাইকে ফোন করলাম, কেউ আসছে না। মরে গেলে আসবেন ভাই?’

নায়িকা পরীমনির বাসায় ‘সুনির্দিষ্ট কিছু অভিযোগের’ র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) অভিযান চালাচ্ছে বলে বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হলেও নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে লাইভে এসে একথা বলছিলেন তিনি।

লাইভে পরী বলেন, এরা যদি ডাকাত হয় কী করবেন? আমি এটার ভয় করছিলাম। আমি আজ লাইভ কাটব না। এখানে থানা থেকে আসতে কতক্ষণ লাগে? মানুষ কি মরে যাবে? তারা নাকি কেউ জানে না, কোন থানা থেকে আসছে, সিআইডি না র‌্যাব কেউ কিছু বলতে পারছে না।

‘আমি ডিবি অফিসে ফোন করলাম, হারুন ভাই বললেন, আমাদের এখান থেকে কেউ যায়নি। তোমার দরজা খোলার দরকার নেই। আমরা আসছি। আমি বুঝতেছি না আমি মরে গেলে আসবেন? আমি তো হার্ট আট্যাক করব। ব্রেনস্ট্রোক করে মরে যাব। এটা একদম টর্চার।’